সাময়িক অসুবিধার জন্য আমরা আন্তরিকভাবে দু:খিত। ব্লগের উন্নয়নের কাজ চলছে। অতিশীঘ্রই আমরা নতুনভাবে ব্লগকে উপস্থাপন করবো। ইনশাআল্লাহ।

মুসলমানদের জন্য কাফির-মুশরিক, বিধর্মী-বিজাতীয়দের প্রবর্তিত দিবসসমূহ পালন করা হারাম। যে পালন করবে, সে মুসলমান থেকে খারিজ হয়ে যাবে


সম্মানিত মুসলমান উনাদেরকে যিনি খলিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি “আইয়্যামুল্লাহ” অর্থাৎ মহান আল্লাহ পাক উনার সম্মানিত দিবসসমূহ পালন করার জন্য আদেশ মুবারক করেছেন। বিপরতী পক্ষে মহান আল্লাহ পাক উনার শত্রু কাফির-মুশরিক, বেদ্বীন-বিজাতিদের প্রবর্তিত ও পালিত দিবসসমূহ পালন করতে নিষেধ করে দিয়েছেন। মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেছেন, “তোমরা কাফির ও মুনাফিকদের আনুগত্য বা অনুসরণ করো না।
অন্যত্র ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “মুশরিকরা তোমাদের ঘোরতর শত্রু।”
আরো ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “কাফির-মুশরিকদের জন্য যন্ত্রণাদায়ক শাস্তি রয়েছে।”
যার কারণে সম্মানিত মু’মিন-মুসলমান উনাদেরকে কাফির-মুশরিকদের অনুসরণ করতে নিষেধ করা হয়েছে।
পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে আরো ইরশাদ মুবারক করা হয়েছে, মুসলমান হয়ে যারা কাফির-মুশরিকদের সাথে বন্ধুত্ব করবে, তাদের নিয়মনীতি, তর্জ-তরীক্বা, পরামর্শ, মত-পথ, কৃষ্টি-কালচার গ্রহণ করবে, সমর্থন করবে, সহাযোগিতা করবে, তাদের সাথে সাদৃশ্য রাখবে, তাদের ঈমান নষ্ট হবে। মুসলমানিত্ব নষ্ট হবে। ফলে তারা মুরতাদ ও কাফিরে পরিণত হয়ে চির জাহান্নামীদের অন্তর্ভুক্ত হবে। নাউযুবিল্লাহ!
কাজেই কোনো কাফির-মুশরিক, বেদ্বীন-বিজাতীয়দের অনুসরণ করা যাবে না, তাদেরকে মুহব্বত করা যাবে না। করলে তাদের সাথেই হাশর-নশর হবে এবং চির লা’নতগ্রস্ত ও চিরজাহান্নামী হতে হবে।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে