মুসলমানদের বিয়ের বয়স নির্ধারন করে দেয়া রাষ্ট্রদ্বীন ইসলাম অবমাননার শামিল


সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার বিধান অনুসারে একজন মুসলমান যে কোন বয়সে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হতে পারবেন। বিবাহের জন্য নারী পুরুষের কোন সুনির্দিষ্ট বয়সকে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার মাঝে নির্ধারন করে দেয়া হয়নি। তার মানে রাষ্ট্রদ্বীন ইসলাম উনাকে যারা মেনে চলবেন উনারা যেকোন বয়সে বিয়ে করতে, করাইতে পারবেন। এতে কোন নিষেধাজ্ঞা নেই। এরপরও যখন সেই রাষ্ট্র আইন করে বিবাহের জন্য বয়স নির্দিষ্ট করে দেয় তখন কি সেটা সাংঘর্ষিক হয়ে যায় না। সেটা কি আদালত অবমাননার চেয়ে ভয়ংকর অপরাধ ইসলাম অবমাননার কাতারে পড়ে যায়না?
যেহেতু আমাদের সম্মানিত দ্বীন্ ইসলাম বিবাহের বয়স নির্ধারন করেননি; সেহেতু আমরাও তা করতে পারিনা, চাইতে পারিনা এবং অবৈধভাবে কারো দ্বারা করাটাকেও মেনে নিতে পারিনা। এটাই মুসলমান উনাদের ঈমানী চেতনা।
আমরা বাংলাদেশের ৯৮ ভাগ মুসলমান সারাবিশ্বের মুসলমান উনাদের পক্ষ থেকে বিয়ের বয়স নির্ধারনকারী সম্প্রতি পাশ হওয়া অবৈধ আইন খাস সুন্নতী বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন যা সম্মানিত রাষ্ট্রদ্বীন উনাকে অবমাননা করেছে সেই কুফরী আইনকে অবিলম্বে বাতিল করার জন্য জোর দাবী জানাচ্ছি। একই সাথে দেশী-বিদেশী যে বা যারা এই কুফরী আইনের পক্ষে প্রচারনা চালাচ্ছে তাদেরকে গ্রেফতার করে হাজতবাসের জন্য আহবান জানাচ্ছি।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে