মুসলমানরা কি এটা চিন্তা-ফিকির করে দেখেছে? কথিত স্বাস্থ্যবিধির নামে ঘুরেফিরে বারবার একমাত্র দ্বীন ইসলাম উনার প্রতিই আঘাত করা হচ্ছে


কাফিরদের প্রতি নাযিলকৃত করোনা নামক গযব প্রতিরোধের নামে বার বার সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার প্রতি আঘাত হানছে কাফির-মুশরিকদের পা চাটা গোলাম নাস্তিক, মুনাফিক্ব, উলামায়ে সূ এবং গোমরাহ শাসকরা। শুরু থেকেই এরা বিভিন্ন কৌশলে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার বিভিন্ন বিষয় নষ্ট করে আসছে। যেমন:
১. স্যোসাল ডিসটেন্সের নামে পবিত্র মসজিদসমূহে জামায়াত নিষিদ্ধ করা হয়েছে। নাউযুবিল্লাহ!
২. নামাযের কাতারের মাঝে ফাঁকা ফাঁকা হয়ে দাঁড়াতে আইন জারী করেছে। নাউযুবিল্লাহ!
৩. স্বাস্থ্যবিধির নামে জামায়াত সীমিত করে ৫-১০ জনের বেশি নয় আইন জারী করেছে। নাউযুবিল্লাহ!
৪. মুসলমানদের ভাগ্য রজনী পবিত্র শবে বরাত নষ্ট করেছে। নাউযুবিল্লাহ!
৫. পবিত্র তারাবীহর নামায নষ্ট করেছে। নাউযুবিল্লাহ!
৬. পবিত্র জুমুয়ার নামায নষ্ট করেছে। নাউযুবিল্লাহ!ৎ
৭. পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাযও নষ্ট করেছে। নাউযুবিল্লাহ!
৮. পবিত্র হজ্জ নিষিদ্ধ করেছে। নাউযুবিল্লাহ!
এবার মুসলমানদের পবিত্র কুরবানী নষ্ট করার নানান প্রক্রিয়া শুরু করেছে। নাউযুবিল্লাহ! ইতিমধ্যেই ঘোষণা দেয়া হয়েছে যে, পবিত্র ঈদুল আদ্বহার নামাযও মসজিদে আদায় করতে হবে ঈদগাহে যাওয়া যাবেনা। নাউযুবিল্লাহ! রাজধানীতে পবিত্র কুরবানীর পশুর হাট নিষিদ্ধ করার পায়তারা করছে। নাউযুবিল্লাহ! ছবিভিত্তিক অনলাইনে পবিত্র কুরাবনীর পশু ক্রয় করতে হবে বলে প্রচার করছে। নাউযুবিল্লাহ!
এখন প্রশ্ন হচ্ছে, তাদের সমস্ত আইন কেন সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার বিরুদ্ধে?
> যেখানে সমস্ত হাট-বাজার খোলা সেখানে পবিত্র কুরবানীর হাট নিয়ে কেন তাদের এতো মাথা ব্যথা?
> যেখানে সমস্ত মার্কেট খোলা সেখানে কেন ঈদগাহে যেতে বাধা?
> বিধর্মীদের পূজা যদি মন্দিরে হয় তাহলে মুসলমানদের কুরবানীর পশু কেন অনলাইনে কিনতে হবে?
> যদি ভোট দেয়ার জন্য মানুষ কোন দূরত্ব বজায় না রেখে লাইন ধরে ভোট দিতে পারে, তাহলে মসজিদে কেন কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাতারে দাঁড়াতে পারবে না?
তাহলে কি এটাই প্রমাণ হয় না যে, করোনা প্রতিরোধের নামে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম বিরোধী কার্যক্রমে লিপ্ত কাফির-মুশরিকদের পা চাটা গোলাম নাস্তিক, মুনাফিক্ব, উলামায়ে সূ এবং গোমরাহ শাসকরা?
যদি তাই হয়! তাহলে তোমাদেরকে এখনি সাবধান করা হচ্ছে, কাফিরগুলো যেভাবে ধ্বংস হচ্ছে তোমরাও কিন্তু সেভাবে ধ্বংস হয়ে যাবে, বিলীন হয়ে যাবে। দুনিয়ার কোন শক্তি নেই তোমাদেরকে রক্ষা করতে পারে।
কেননা বাংলার যমীনে অবস্থান মুবারক করছেন মহান মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম তিনি। উনার মুবারক বদদোয়ার কারণেই আজ সমস্ত কাফিরগোষ্ঠী নিস্তানাবুদ হচ্ছে, ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। তোমরা যদি সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনাকে নিয়ে বাড়াবাড়ি করো তাহলে তোমাদেরও একই পরিণতি বরণ করতে হবে। কাজেই সাবধান!

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে