মুসলমানরা যখন ইসলাম থেকে দূরে সরে যাবে, তখন তাদের উপর জালেম শাসক চাপিয়ে দেওয়া হবে


বাগদাদ দখলের পর হালাকু খাঁর মেয়ে বাগদাদ ঘুরতে বের হল। পথিমধ্যে সে দেখল একদল লোক একজন লোককে ঘিরে জটলা পাকিয়ে দাঁড়িয়ে আছে। হালাকু খাঁর কন্যা কৌতুহলী হয়ে লোকটি সম্পর্কে জানার জন্য লোক পাঠালো। খবর নিয়ে জানা গেল লোকটি একজন আলেম। অতঃপর আলেমকে হাজির করতে বলল।

মুসলিম আলেমটি যখন সম্রাটকন্যার সামনে এলেন, আলেমটিকে সম্রাটকন্যা প্রশ্ন করল,

কন্যাঃ তোমরা কি আল্লাহর প্রতি বিশ্বাসী নও?
‘আলেম: অবশ্যই।

কন্যা: তোমরা কি বিশ্বাস করো না যে, আল্লাহ তায়ালা যাকে চান তাকে সাহায্য করেন?
‘আলেম: অবশ্যই।

কন্যা: আল্লাহ কি তোমাদের উপর আমাদেরকে সাহায্য করেন নি?
‘আলেম: অবশ্যই।

কন্যা: তার অর্থ কি এই নয় যে, আমরা তোমাদের চেয়ে আল্লাহর কাছে অধিক প্রিয়?
‘আলেম: না।

কন্যা: কেন?
‘আলেম: তুমি রাখাল চেনো তো?

কন্যা: জ্বি, চিনি।
‘আলেম: রাখালের সাথে কি একদল কুকুর থাকে না?

কন্যা: অবশ্যই থাকে।
‘আলেম: যখন কোন মেষ বিক্ষিপ্ত হয়ে তার নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়, তখন রাখাল কী করে?

কন্যা: রাখাল মেষগুলোকে নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য কুকুর পাঠায়।
‘আলেম: কুকুর কতক্ষণ মেষগুলোকে তাড়িয়ে বেড়ায়?

কন্যা: যতক্ষণ পর্যন্ত মেষগুলো ছত্রভঙ্গ থাকে।
‘আলেম: হে তাতারি! তোমরা হলে আল্লাহপাকের যমীনে কুকুরের দল, যতদিন পর্যন্ত আমরা আল্লাহপাকের নির্দেশিত পথ থেকে দূরে থাকব, উনার আনুগত্য থেকে সরে থাকব, তোমরাও ততদিন পর্যন্ত আমাদের পেছনে লেগে থাকবে। যতদিন না আমরা আল্লাহপাকের দিকে ফিরে আসি।

একটা সময় ছিল যখন মুসলমান সংখ্যায় অল্প হয়েও ১০ গুন বেশি কাফির মুশরিকদের উপর জয় লাভ করতো আর এখন ইহুদী নাসারাদের রীতি-নীতিতে আষ্টেপৃষ্ঠে থাকা পৃথিবীতে মুসলমানদের সংখ্যা বেশি হলেও দেখা যায় বেধর্মীদের গোলামীতে ব্যস্ত। বলা হয়েছে, মুসলমানরা যখন ইসলাম থেকে দূরে সরে যাবে, তখন তাদের উপর জালেম শাসক চাপিয়ে দেওয়া হবে।অতএব, বর্তমানে দেশ
জুড়ে যত অরাজকতা, বিশৃঙ্খলা,নৈরাজ্য, মুসলমানদের উপর যত উৎপীড়ন, নিপীড়ন সব কিছু দায়ভার দিন শেষে জনগনের-ই , সরকারের নয়।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে