মুসলমান উনাদের জন্য বিধর্মী ও বিজাতীয়দের অনুসরণ করা কাট্টা হারাম, নাজায়িয ও কুফরী


পহেলা বৈশাখ পালনের ইতিহাস পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার সাথে সম্পৃক্ত নয়। এটা পালন মুসলমানগণ উনাদের কাজ নয়। ইতিহাসের তথ্য অনুযায়ী নববর্ষ বা নওরোজ বা পহেলা বৈশাখ পালনের সংস্কৃতি মজুসি, বৌদ্ধ ও হিন্দুদের থেকে এসেছে। সাধারণভাবে প্রাচীন পারস্যের তথাকথিত শক্তিশালী সম্রাট জমশীদ খ্রিস্টপূর্ব ৮০০ সালে এই নওরোজ প্রবর্তন করেছিল এবং এ ধারাবাহিকতা এখনো পারস্য তথা ইরানের মজুসীদের মধ্যে ঐতিহ্যগত নববর্ষের জাতীয় উৎসব পালিত হয়। ইরানের মজুসীদের থেকেই এটা অপসংস্কৃতির ধারা বেয়ে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন মুসলিম দেশ এবং ভারত উপমহাদেশে প্রবেশ করে। ফসলী সন বা পহেলা বৈশাখ বাঙ্গালি দ্বারা প্রবর্তিত নয়। বাদশাহ আকবর ফসলী সন হিসেবে পহেলা বৈশাখ-এর প্রবর্তন করে। আর বাদশাহ আকবর ছিল মঙ্গলীয় এবং ফারসী ভাষী। কাজেই বাংলা সংস্কৃতির সাথে সম্রাট আকবরের কোনো সংশ্লিষ্টতা থাকার কথা নয়। তাছাড়া ফসলী সনের নববর্ষ হিন্দুদের খাছ ধর্মীয় উৎসবের দিন। এর আগের দিন তাদের চৈত্র সংক্রান্তি। পহেলা বৈশাখ হলো তাদের ঘটপূজার দিন। মুসলমান উনাদের জন্য বিধর্মী ও বিজাতীয়দের অনুসরণ করা অর্থাৎ পহেলা বৈশাখ পালন করা কাট্টা হারাম, নাজায়িয ও কুফরী।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে