মুসলমান মর্দে মুজাহিদ বীরের জাতি। কাফির মুশরিক সন্ত্রাসীদের ভয়ে ভীতু কাপুরুষের মতো পিছু হটতে পারে না


 

একবার চিন্তা ফিকির করে দেখুন, ইরাক সিরিয়ার মুসলমান নামধারী যুবক যুবতীগুলো খেলাধূলায় ব্যাস্ত, নাটক সিনেমায় ব্যাস্ত, ইন্টারনেট ফেইসবুক চ্যাটিং এ ব্যাস্ত, গল্প গুজব আড্ডা আর হানিমুনে ব্যাস্ত, ওদের সময় নাই- ইসলাম শিখার, ওদের সময় হচ্ছেনা ইসলাম চর্চা করার, ওদের সময় নাই সুন্নত পালন করার, ওদের সময় নাই উম্মাহকে নিয়ে ভাবার, ওদের সময় নাই মুসলিম বীর মুজাহিদে উনাদের ঈমানদীপ্ত ইতিহাস শুনার। ওদের সময় নাই কামিল আউলিয়া কিরাম আজমাঈন উনাদের সোহবতে বসার, ওদের সময় নাই আতœাকে পরিশুদ্ধ করার…..!!!

ওদের এমন ব্যাস্ততম সময়ে কাফির মুশরিক ইহুদী নাসারা সন্ত্রাসীরা আক্রমন শুরু করে দিলো…ব্যাস আর যায় কই? মুসলমান নামধারী তরতাজা এইসকল যুবক যুবতী পরিবার পরিজনশুদ্ধা ভয়ে থর থর করে কম্পিত হয়ে দিকবিদিক ছুটাছুটি দৌড়াদৌড়ি আরম্ভ করে দিলো। কেউ আহত হলো, কেউ নিহত হলো, কেউ শরনার্থি অভিবাসী নাম ধারন করে সেই আক্রমনকারী সন্ত্রাসী কাফিরদেরই দেশে দেশে আশ্রয় নিরাপত্তা খুজতে লাগলো ভিক্ষুকের মতো। অন্যান্য দেশের মুসলমান নামধারীরা এইসব আক্রান্ত মুসলমানদের করুন দশা তুলে ধরে বক্তব্য বিবৃতি মিছিল মিটিং সিম্পোজিয়াম শুরু করলো। একদল আবার ইহুদী নাসারাদেরকে প্রতিরোধের নামে ইহুদী নাসারাদেরই প্রশিক্ষন আর মদদে সোনালী যুগের খারেজী রাফেজী সন্ত্রাসীদের মত আজব জিহাদ, আজব খিলাফতের ডাক দিলো !!হে মুসলমান যুবক যুবতী ! তোমাদেরকে কি খেলাধুলার জন্য সৃষ্টি করা হয়েছে? তোমাদেরকে কি গান বাজনা নাট্য সিনেমার জন্য পাঠানো হয়েছে? তোমাদেরকে কি চ্যাটিং আড্ডাবাজি হানিমুনের জন্য বলা হয়েছে? তোমাদেরকে কি ইহুদী নাসারা মুশরিকদের মতো চলার জন্য বলা হয়েছে? তোমাদেরকে কি বিধর্মী বিজাতীদের সাথে বন্ধুত্ব করতে বলা হয়েছে? তোমাদেরকে কি কাফির মুশরিকদের ভয়ে পালাতে বলা হয়েছে? তোমরা কার কাছে আশ্রয় খোজো? তোমাদের আশ্রয়দাতা কে? তোমরা কি কবর হাশর নশরের কথা ভুলে গেছো? তোমারা কি মরার কথা ভুলে গেছো? ভুলার তো কথা নয় কারন তোমাদের চোখের সামনেই তো তোমাদের জাতিকে মারা হচ্ছে। তোমাদেরকে কি বিজাতী তরীকায় সন্ত্রাসী আলাদা দল বানাতে বলা হয়েছে?

হে মুসলমান যুবক যুবতী !!

জীবনটা আর কতকাল কতযুগের বা কত বছরের? হয়তোবা ১০০ বছরের তোমাদের হায়াতে জিন্দেগী ! এরপর..? এরপরতো অনন্তকালের জিন্দেগী। সেই জিন্দেগীর শান্তির জন্য তোমার বা তোমাদের প্রস্তুতি কোথায়?

এখনো সময় আছে। এসো এসো ফিরে এসো। তুমি যেখানে যে অবস্থায় থাকোনা কেনো? মহান আল্লাহ পাক উনার রহমত থেকে, নুরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুজুর পাক ছল্লল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার দয়া ইহসান থেকে নিরাশ হইও না। কাফির মুশরিকদের আক্রমনের ভয়ে পালিয়ে পালিয়ে তোমাদের ইহ- পরকালকে বরবাদ করো না। প্রতিবাদ প্রতিরোধ প্রতিশোধের দাবানলে ঘুরে দাড়াও একদম শিসাঢালা প্রাচীরের ন্যায়।

আয়ে বারে ইলাহী মহান আল্লাহ পাক! আমাদের দেশসহ সারা বিশ্বের মুসলমান নওজোয়ান যুবক যুবতী সহ সকল মুসলমান ভাইবোনদের সেই ঈমানী তৌফিক দান করুন। আমীন।

Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে