‘মুসলিম’ ও ‘মুহাজির’ উনাদের এক কথায় পরিচিতি


বিশিষ্ট ছাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বলেন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “প্রকৃত মুসলিম ওই ব্যক্তি, যাঁর জবান ও হাত থেকে অন্য মুসলিমগণ নিরাপদ থাকেন। আর প্রকৃত মুহাজির বা হিজরতকারী ওই ব্যক্তি, যিনি মহান আল্লাহ তায়ালা তিনি যা নিষেধ মুবারক করেছেন তা বর্জন করে চলেন।” (বুখারী শরীফ, মিশকাত শরীফ, কিতাবুল ঈমান ১ম পরিচ্ছেদ)

বিশিষ্ট ছাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বলেন, “একদা এক ব্যক্তি নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার খিদমত মুবারকে আরজ করেন, ‘মুসলমান উনাদের মধ্যে কে উত্তম? জাওয়াবে তিনি বললেন, যার জবান ও হাত থেকে অন্য মুসলমান উনারা নিরাপদ থাকেন।” (মুসলিম শরীফ, মিশকাত শরীফ, কিতাবুল ঈমান ১ম পরিচ্ছেদ)
মাসয়ালা: (১) জবান, হাত ও যাবতীয় অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ দিয়ে মুসলমানগণকে এবং অযথা কোনো সৃষ্টিকে কষ্ট দেয়া জায়িয নেই। (২) পাপ কাজ থেকে ফিরে থাকা প্রকৃত হিজরতের লক্ষণ (৩) মু’মিন-মুসলিম উনারা পরস্পরে দয়াশীল হবেন, আর কাফির, মুশরিক, মুনাফিক ও বিধর্মীদের প্রতি কঠোর হবেন।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে