মুসলিম ব্যক্তি কাফিরদের সাথে বন্ধুত্ব করতে পারে না!


শত্রুর কাজতো শত্রুতাই করা এবং করেও তাই।যেমন মহান আল্লাহ পাক যখন কালামুল্লাহ শরীফে জানিয়ে দিলেন “শয়তান তোমাদের প্রকাশ্য শত্রু” তখন কারোই অজানা থেকে না যে শয়তানের ওয়াসওয়াসায় যা করা হবে সবই ক্ষতির কারণ হবে!!!এখন যেটা বলার বিষয় সেটা হচ্ছে,শয়তান লা’নতগ্রস্ত,জাহান্নামী,যার কারণে সে চায় বান্দাকে জাহান্নামী করতে সেটা যেভাবেই হোক!যার কারণে কখনো কখনো শয়তান নেক সূরতেও ধোকা দিয়ে থাকে!এখন প্রকাশ্য শত্রু একরকম,আর গোপন শত্রু আরেক রকম!!!শয়তান তো চিহ্নিত শত্রু,সুতরাং উচিত কি???শয়তান থেকে দূরে থাকা,নিজেকে হিফাযত করা,শয়তানকে সুযোগ না দেয়া…।যেই আল্লাহ পাক শয়তানকে শত্রু বলে জানিয়ে দিলেন সেই আল্লাহ পাকই কিন্তু মানুষের মধ্যে শত্রু কারা তাও জানিয়ে দিয়েছেন।তাহলে কি উচিত হবে না সেই শত্রু থেকেও নিজেদের হিফাজত করা,দূরত্ব বজায় রাখা,তাদের সাথে বন্ধুত্ব না করা,তাদের সাথে সম্পর্ক না রাখা???কারা সেই শত্রু???মহান আল্লাহ পাক পবিত্র সূরা মায়িদা শরীফ উনার পবিত্র ৮২ নম্বর আয়াত শরীফে ইরশাদ মুবারক করেছেন “তোমরা তোমাদের সবচেয়ে বড় শত্রু হিসেবে পাবে ইহুদীদেরকে।অতঃপর যারা মুশরিক তাদেরকে।” সুতরাং শত্রুকে শত্রু হিসেবেই চিহ্নিত করা হোক,তাদের ব্যবহার মধুময় হলেও। কে আছে নিজেকে মুসলিম দাবী করে অথচ আয়াত শরীফ অস্বীকার করে এবং মুশরিক,ইহুদী তথা কাফিরদের সাথে বন্ধুত্ব করে !?!

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে