মুসলিম সেনাপতি খালিদ বিন ওয়ালিদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু, ‍যিনি কখনো কোন যুদ্ধে পরাজিত হন নি


হযরত খালিদ বিন ওয়ালীদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু ছিলেন মুসলিম ইতিহাসে আলোড়ন সৃষ্টিকারী এক মহান সেনাপতি। যিনি রণক্ষেত্রে নিজের শক্তি ও মেধার দ্বারা বাতিলের শক্তি মূলোৎপাটন করে তাওহীদের পতাকাকে বুলন্দ করেছিলেন।

হযরত খালিদ ইবন ওয়ালীদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু ( ৫৯২–৬৪২) তিনি ছিলেন পৃথিবীর সবচেয়ে শক্তিশালি সেনাপতি। প্রথম জীবনে তিনি ছিলেন একজন মুর্তিপুজারি। যিনি ওহুদ যুদ্ধে প্রায় মুসলিম বাহিনীকে পরজিত করে দিয়েছিলেন এবং হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে শহীদ করতে চেয়েছিলেন।উনি হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সংস্পর্শে এসে ইসলাম ধর্ম গ্রহন করার পর পুরো মধ্যপ্রাচ্যে ইসলামের ঝান্ডা উত্তলনে গুরুত্বপুর্ন ভুমিকা পালন করেন। উনাকে ‘সাইফুল্লাহ’ বা ‘আল্লাহর তরবারি’ বলা হত। তিনি এই উপাধি মুবারক পান মুতার যুদ্ধে । যখন হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনজন সেনাপতি নির্ধারন করে দেন এবং উনারা তিনজনই শহিদ হলে যোগ্য কোন লোককে ঝান্ডা তুলো ধরার আহ্বান করেন। তখন তিন জনই শহীদ হলে হযরত খালিদ বিন ওয়ালিদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু ঝান্ডা তুলেন এবং বিশাল সৈন্যদলের সামনে সামান্য মুসলিম সৈন্য নিয়ে জয়লাভ করেন।
নবী করীম ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার ওফাত গ্রহনের পর খলিফাদের সময় তিনি মুসলিম সেনাপতি হিসাবে জয় করে নেন অর্ধেক বিশ্ব। উনার যুদ্ধের আদর্শ এবংকৌশল ছিলহুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার আদর্শ এবং কৌশল অনুযায়ী। তিনি পারস্য, ইরাক, রোমান, সিরিয়া, মিশর , ইসরাইল , লিবিয়া , মিশর , সাইপ্রাস সহ মুসলিম সংগরিষ্ঠ বেশির ভাগ দেশ জয় করেছিলেন। তিনি সবসময় অল্প সৈন্য বাহিনী নিয়ে বিশাল সৈন্য বাহিনীর উপর বিজয়ী হতেন এবং উনার জীবদ্দশায় কখনও কোন যুদ্ধে তিনি পরাজয় বরণ করেননি ।
(সুবহানাল্লাহ)

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে