মূর্খরাই কি ছয় উছুলী তাবলীগ করে?


যারা তাবলীগ করে তারা নামায আর আমল উনার কথা বলে। ব্লগে আমি একটি পোস্ট দিয়েছিলাম গাট্টিওয়ালাদের কাছে। যাতে নামায উনার কিছু মাসয়ালা জিজ্ঞেস করেছিলাম। যেগুলো হলো-
১) নামায পড়ার সময় মোবাইলে বাজনা রিংটোন বাজলে এর কি হুকুম?
২) যে রুমে নামায পড়া হয়, সে রুমে যদি প্রাণীর ছবি থাকে, তাহলে তার কি হুকুম হবে?
৩) পবিত্র কা’বা শরীফ, পবিত্র রওজা শরীফ, পবিত্র মদীনা শরীফ, পবিত্র মসজিদে নববী শরীফ, পবিত্র বায়তুল মুকাদ্দাস শরীফ উনাদের ছবি যে সমস্ত জায়নামায-এ থাকে তার উপর নামায পড়া যাবে কি?
৪) ওযূ করার পর ভিজা পায়ে জুতা বা ভূমিতে পা রাখা কি ঠিক?
৫) ভিডিও করা অবস্থায় নামায পড়া কি জায়িয?
৬) সিসিটিভি লাগানো জায়গায় নামায পড়া জায়িয, নাকি নাজায়িয?
কিন্তু কেউ উত্তর দিতে পারলো না। কত জনে কত কথা বললো কিন্তু কেউ সঠিক উত্তর দিলো না!!! অথচ এরা নামায উনার ব্যাপারে মানুষকে আহ্বান করে কিন্তু নামায কবুল হওয়ার শর্ত-ই জানে না! তাহলে ছয় উছূলী তাবলীগ কি শুধু মূর্খরাই করে?
তাহলে এদের দ্বীনের দাওয়াত দেয়ার যোগ্যতা কোথায়, যেখানে তারা নিজেরাই নামাযের মাসয়ালা জানে না? মহান আল্লাহ পাক তিনি তো বলেই দিয়েছেন, “এমন কথা তোমরা বলো না, যা তোমরা নিজেরা করো না।” আগে তো নিজে জানতে হবে, পবিত্র ঈমান ঠিক করতে হবে, আমল করতে হবে তারপর অন্যকে বলতে হবে। কিন্তু এদের পবিত্র ঈমান-আমল কোনোটাই ঠিক নেই। মূলত, ছয় উছুলী তাবলীগ সম্পূর্ণ মনগড়া, বাতিল একটি মতবাদ।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+