:::::::মৃত আত্মীয়স্বজনদের জন্য দোয়া করুন,দান,সদকা করুন,তাদের নাজাতের ব্যবস্থা করুন::::::::::


একজন পানিতে ডুবন্ত ব্যক্তি বাচার জন্য যখন অনেক চেষ্টা করে তখন সে পানিতে ভাসমান খড়কুটো দেখলে তা আকড়ে ধরেও বাঁচতে চায়,যদিও সে জানে যে এটা ধরে তার কোনো উপায় হবে না!!! মৃত ব্যক্তিরাও পানিতে ডুবন্ত ব্যক্তির ন্যায়। অর্থাৎ কঠিন মুসিবত এর মধ্যে তারা থাকে (যারা নাজাত পায় না)। তারা এ অবস্থা থেকে মুক্তি চায়। কিন্তু তাদের জন্য আমলের কোনো দরজাই আর খোলা থাকে না,কোনো উপায়ই থাকে না নেক আমল করার। তখন তাদের নাজাতের একটাই উপায় থাকে,তা হচ্ছে তাদের আল আওলাদ,আত্মীয়স্বজন কর্তৃক প্রেরিত দোয়া,দান,সদকা। যা তাদের নাজাতের উসীলা হয়,মর্যাদা বৃদ্ধির কারণ হয়। সুবহানাল্লাহ।
আজকে আমরা মাটির উপর আছি,কাল কিন্তু আমরাও মাটির নিচে চলে যাবো। হযরত যুননূরাইন আলাইহিস সালাম উনি যখন কবর দেখতেন কাঁদতে কাঁদতে উনার দাড়ী মুবারক ভিজে যেতো। উনাকে জিজ্ঞাসা করা হতো, হে হযরত যুননূরাইন আলাইহিস সালাম! আপনি হাশর-নশর সবই শুনেন তখনতো আপনি কাঁদেন না,তাহলে কবরেজুর কথা শুনলে,কবর দেখলে কেনো আপনি কাঁদেন? তিনি বললেন যে,দেখ বাবা! কবর হচ্ছে প্রথম মনযিল। এখানে যে পাকড়াও হবে,সব জায়গায় সে পাকড়াও হবে। আর এখানে যে নাজাত পাবে,সে সব জায়গায় নাজাত পাবে।
কাজেই কবরে তো যেতেই হবে,আজ আমরা মৃত ব্যক্তিদের যদি ভুলে থাকি,তাহলে কাল কিন্তু আমাদেরও কেউ মনে রাখবে না। কাজেই নিজের দিকে চিন্তা করে হলেও কবরবাসীদের জন্য এই রমজান মাসে বেশি বেশি করে দান সদকা করুন,তাদের নাজাতের জন্য দোয়া করুন।
মহান আল্লাহ পাক যেন আমাদের পিতা-মাতা,আত্মীয় স্বজন,জ্ঞাতি-গোষ্ঠী,ভাইবোন যারা কবরে শায়িত রয়েছেন তাদেরকে ক্ষমা করে দিয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস নসীব করেন। আমীন।

Views All Time
2
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে