মেয়ে সন্তানের ফযীলতসমূহ


হযরত আবদুল্লাহ ইবনে উমর রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার থেকে বর্ণিত, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “ঐ মহিলা বরকতময়ী যার প্রথম সন্তান মেয়ে হয়। মহান আল্লাহ পাক তিনি যাকে ইচ্ছা মেয়ে দেন আর যাকে ইচ্ছা ছেলে দেন।” সুবহানাল্লাহ! পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে আরো ইরশাদ মুবারক হয়েছে, যে ব্যক্তি দুইজন কন্যা সন্তানকে বয়ঃপ্রাপ্ত হওয়া পর্যন্ত লালন পালন করলো সে ব্যক্তি ক্বিয়ামতের দিন এরূপ অবস্থায় উঠবে যে, আমি আর সে এরকম মিলিত অবস্থায় অবস্থান করবো এই বলে তিনি স্বীয় আঙ্গুলী মুবারক একত্রিত করে দেখালেন। সুবহানাল্লাহ! (মুসলিম শরীফ) হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার থেকে বর্ণিত, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহু হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, যার গৃহে কন্যা সন্তান জন্ম গ্রহণ করলো এবং ঐ মেয়েকে কষ্ট দেয়নি ও তার উপর অসন্তুষ্ট হয়নি এবং পুত্রদেরকে তার উপর প্রাধান্য দেয়নি ঐ কন্যা সন্তানের কারণে সে ব্যক্তি জান্নাতী হবে। সুবহানাল্লাহ! (ফিরদাউস-৪.২৫৫)

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে