মে দিবস পালন করা অজ্ঞতা ও মূর্খতারই নামান্তর



১লা মে তথাকথিত শ্রমিক দিবস, হিসেবে পালন করছে কাফিরদের সাথে অনেক মুসলমানরা। কিন্তু কেউ কী একবার ভেবে দেখেছে, এ দিবস কোথা থেকে এসেছে? কে এর প্রবক্তা? না জেনে, না শুনে অন্ধের মতো পালন করে যাচ্ছে ইহুদী-খ্রিস্টানদের প্রবর্তিত দিবসগুলো। কথিত শ্রমিক দিবস যা ইহুদী-খ্রিস্টানদের দ্বারা প্রবর্তিত। যেহেতু তারা শ্রমিকদের হক্ব আদায় করে না, তাই প্রতি বছর রছম রেওয়াজ হিসেবে একদিন শ্রমিক দিবস পালন করার নাম দিয়ে মানুষদের ধোঁকা দেয়। কিন্তু পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে তো সদাসর্বদা শ্রমিকদের প্রতি ইনসাফ, তাদের অধিকার সম্পর্কে তাকীদ দেয়া হয়েছে। যেমন পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “তোমরা শ্রমিকদের কাজ করানোর পর তাদের গায়ের ঘাম শুকানোর আগেই তাদের পারিশ্রমিক দিয়ে দাও।” পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে আরো ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “যদি কোনো ধনী ব্যক্তি শ্রমিক দ্বারা কাজ করালো এবং তার পারিশ্রমিক ঠিকমতো দিলো না তাহলে তা যুলুম করা হলো।” এরূপ বহু পবিত্র হাদীছ শরীফ বর্ণিত রয়েছে। যা দ্বারা সুস্পষ্টভাবে প্রমাণিত হয় যে, শ্রমিকদের অধিকার সম্পর্কে মহান আল্লাহ পাক তিনি এবং উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা তাকীদ দিয়েছেন। কাজেই মুসলমানদের আলাদা করে শ্রমিক দিবস পালন করাটা কুফরীর অন্তর্ভুক্ত। মূলত শ্রমিক দিবস পালন করা শ্রমিকদের অবমাননারই শামিল। শ্রমিকদের চতুর্থ পর্যায়ের মানুষ বলে অবমাননা, অপমানিত করা; যা পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে সম্পূর্ণই নিষেধ। পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে ধনী-গরিবের মধ্যে কোনো বৈষম্য নেই।
Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে