যাদের উপর সম্মানিত কুরবানী ওয়াজিব, তাদের উচিত সম্মানিত কুরবানী আদায় করা। অন্যথায় চরম অসন্তুষ্টিতে পতিত হবে।


যাদের উপর সম্মানিত কুরবানী ওয়াজিব, তাদের উচিত সম্মানিত কুরবানী আদায় করা। অন্যথায় চরম অসন্তুষ্টিতে পতিত হবে।

মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন,
فَصَلِّ لِرَبِّكَ وَانْحَرْ

অর্থ: “হে আমার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনার যিনি রব মহান আল্লাহ পাক উনার (সম্মানিত সন্তুষ্টি মুবারক অর্জনের) জন্যে সম্মানিত নামায মুবারক আদায় করুন এবং সম্মানিত কুরবানী মুবারক করুন।”

আর নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি সম্মানিত কুরবানী উনার গুরুত্ব বুঝাতে গিয়ে ইরশাদ মুবারক করেন, “সামর্থ্য থাকার পরও যে ব্যক্তি সম্মানিত কুরবানী করে না; সে যেন ঈদগাহের নিকটবর্তী না হয়।”

অর্থাৎ সামর্থ্য থাকার পরও যারা সম্মানিত কুরবানী করে না, তাদের উপর খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি এবং উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা কঠিন অসন্তুষ্ট হন। নাউযুবিল্লাহ!

সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার ফায়ছালা হলো- সম্মানিত যিলহজ্জ শরীফ মাস উনার ১০, ১১, ১২ তারিখ অর্থাৎ ১০ (দশ) তারিখের সুবহে সাদিক হতে ১২ (বারো) তারিখের সূর্যাস্তের পূর্ব পর্যন্ত সময়ের মধ্যে যদি কেউ মালিকে নিছাব হয় অর্থাৎ হাওয়ায়েজে আছলিয়াহ (নিত্যপ্রয়োজনীয় ধন-সম্পদ, আসবাবপত্র) বাদ দিয়ে সাড়ে ৭ (সাত) ভরি স্বর্ণ বা সাড়ে ৫২ (বায়ান্ন) ভরি রূপা বা তার সমপরিমাণ মূল্যের মালিক হয়, তাহলে তার উপর সম্মানিত কুরবানী ওয়াজিব। যদি কারো নিকট প্রয়োজনের অতিরিক্ত সম্পদ বা আসবাবপত্র থাকে এবং তা যদি নিছাব পরিমাণ হয়, যেমন- কারো ৫ (পাঁচ) টি ঘর আছে, একটির মধ্যে সে থাকে আর তিনটির ভাড়া দিয়ে সে সংসার চালায় আর একটি অতিরিক্ত, যার মূল্য নিছাব পরিমাণ। এ ক্ষেত্রে তার উপরে সম্মানিত কুরবানী ওয়াজিব হবে।

সাইয়্যিদে মুজাদ্দিদে আ’যম, আহলু বাইতি রসূলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সাইয়্যিদুনা ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি বলেন,
“যাদের উপর সম্মানিত কুরবানী ওয়াজিব তাদের উচিত- সম্মানিত কুরবানী উনার দিন সম্মানিত কুরবানী করে খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার এবং উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের ক্বুরবত বা নৈকট্য মুবারক হাছিল করা।” সুবহানাল্লাহ্

Views All Time
2
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে