যারা শুধুমাত্র কুরআন শরীফ মানে কিন্তু হাদীছ শরীফ, ইজমা ও ক্বিয়াস মানে না তারা কি?


শরীয়তের ফতওয়া হলো, যারা শুধুমাত্র কুরআন শরীফ মানে (আহলে কুরআন) বলে দাবি করে, তারা কাট্টা কাফিরের অন্তর্ভুক্ত। কাজেই তাদের কথা মোটেই গ্রহণযোগ্য নয়।স্বয়ং নূরে মুজাসসাম হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন,
আমি তোমাদের কাউকে যেন এরূপ না পাই সে তার গদিতে হেলান দিয়ে বসে থাকবে আর তার নিকট আমার আদেশাবলীর কোন একটি আদেশ পৌঁছবে যাতে আমি কোন বিষয় আদেশ করেছি অথবা কোন বিষয় নিষেধ করেছি তখন সে বলবে আমি এসব কিছু জানিনা, আল্লাহ তায়ালা-উনার কিতাবে অর্থাৎ কুরআন শরীফ-এ যা পাব তারই অনুসরণ করবো। (আহমদ, আবূ দাউদ, তিরমিযী, ইবনু মাজাহ)
এ হাদীছ শরীফ-এর মধ্যে নূরে মুজাসসাম হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি এ ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন যে, মুসলমান দাবিদারদের মধ্যে এমন এক শ্রেণীর অজ্ঞ লোক বের হবে যারা হাদীছ শরীফকে শরীয়তের দলীল নয় বলতে দ্বিধাবোধ করবে না। অথচ কুরআন শরীফ যেরূপ ওহী তদ্রপ হাদীছ শরীফও ওহী।
কেননা স্বয়ং আল্লাহ পাক নূরে মুজাসসাম হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সম্পর্কে ইরশাদ করেছেন-
তিনি ওহী ব্যতীত নিজের থেকে কোন কথা বলেন না। (সুরা নজম-৩,৪)
হাদীছ শরীফ-এ আরো ইরশাদ হয়েছে, হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ করেন-সাবধান! জেনে রাখ, নিশ্চয়ই আমাকে কুরআন শরীফ দেয়া হয়েছে এবং তার সাথে তার অনুরূপ (হাদীছ শরীফ) দেয়া হয়েছে।
একইভাবে ইজমা ও ক্বিয়াস-এর সমর্থনে বহু আয়াত শরীফ ও হাদীছ শরীফ বর্ণিত রয়েছে।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+