সাময়িক অসুবিধার জন্য আমরা আন্তরিকভাবে দু:খিত। ব্লগের উন্নয়নের কাজ চলছে। অতিশীঘ্রই আমরা নতুনভাবে ব্লগকে উপস্থাপন করবো। ইনশাআল্লাহ।

যা চাওয়ার মন খুলে চেয়ে নিন—


মহান আল্লাহ পাক ইরশার ফরমান – তোমরা আমাকে ডাক, আমি তোমাদের ডাকে সাড়া দিব। (পবিত্র কুরআন শরীফ)
মহান আল্লাহ পাক বান্দার বিনয়ী হওয়াটা অনেক বেশী পছন্দ করে থাকেন। বিনয়ী হবার উত্তম মাধ্যম হচ্ছে দোয়া- মুনাজাত। আর সেই ক্ষণটি যদি হয় দোয়া কবুলের বিশেষ রাত শবে বরাতে, তবে মহান আল্লাহ পাক কতটুকু সন্তুষ্ট হবেন তা বলার অপেক্ষাই রাখে না।
অনেকে আছে বলে থাকেন আমিতো অনেক গুনাহগার আমার দোয়া কি কবুল হবে! উনাদের বলছি চাওয়ার মত চান, অবশ্যই পাবেন। বুঝার জন্য বলছি, একজন গরিব লোক যদি রাস্তা দিয়ে যাবার সময় কোন মানুষের কাছে কিছু চান, মানুষটা যদি সখিহ/ দানশীল হয় তাকে কিছু দিয়ে থাকেন । কিন্তু যদি বখিল/ কৃপণ হন তাহলে নাও দিতে পারেন। যখন সেই গরীব লোকটি হাত- পা ধরে কান্না কাটি করে তখন দেখা যায় ঐ কৃপণ লোকটাও তাকে কিছু টাকা দিয়ে দেয়। যদিও কথাটি আল্লাহ পাক উনার শানে আনা আদবের খেলাফ। মহান আল্লাহ পাক তিনিতো রহমান- রহীম- গাফফার – সাত্তার, বান্দার চাইতে সময় লাগে কিন্তু উনার দিতে সময় লাগে না। তাই আসুন পবিত্র শবে বরাতে প্রান খুলে মহান আল্লাহ পাক উনার কাছে চাই, তবে মুনাজাতে দরুদ শরীফ পড়তে ভুলবেন না। কারন দরুদ শরীফ না পড়লে দোয়া আসমানে ঝুলন্ত অবস্থায় থাকে। মহান আল্লাহ পাক এই পবিত্র শবে বরাতের উছিলায় আমাদের সকলকে মহান আল্লাহ পাক উনার মতে মত এবং উনার হাবীব হুযুর পাক সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পথে পথ করে দিন। আমিন

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে