যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষস্থানীয় পরমাণু গবেষণা কেন্দ্রে দাবানলের প্রবেশ


যুক্তরাষ্ট্রের নিউমেক্সিকো অঙ্গরাজ্যের লস অ্যালমোসে অবস্থিত শীর্ষস্থানীয় সামরিক পরমাণু গবেষণা কেন্দ্রে দাবানলের আগুন ছড়িয়ে পড়েছে। দাবানলের কারণে এরইমধ্যে ঐ গবেষণাগারের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের এক একর জমি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে কর্তৃপক্ষ দাবি করে যাচ্ছে, পরমাণু গবেষণাগার থেকে এখনো কোনো তেজস্ক্রিয়তা ছড়িয়ে পড়েনি। তারা আরো দাবি করে, তেজস্ক্রিয় ও ক্ষতিকারক পদার্থ সমূহগুলোকে কনক্রিট এবং স্টীল এর নির্মিত ঘরে রাখা হয়েছে, যেখানে আগুন প্রবেশ করার সম্ভবনা খুবই কম।
এদিকে, ‘কনসার্ন সিটিজেন ফর নিউক্লিয়ার সেফটি’ নামক একটি প্রতিষ্ঠান জানিয়েছে, ইতিমধ্যে আগুন এমন একটি স্থান থেকে মাত্র সাড়ে মাত্র তিন মাইল দূরে রয়েছে, যেখানে মাটির উপর তাবুর নিচে ড্রামে করে রাখা হয়েছে প্রায় ৩০ লক্ষ ৫৫ গ্যালন ক্ষতিকারক প্লুটনিয়াম বর্জ। প্রতিষ্ঠানটি আরো জানিয়েছে, ড্রামগুলো গাড়িতে করে দক্ষিণ নিউমেক্সিকোর কোন স্থানে নিয়ে যাওয়ার জন্য রাখা হয়েছিল। প্রতিষ্ঠানটি সতর্ক করে জানায়, এই বর্জে আগুন ধরলে অবশ্যই বড় ধরনের বিপর্যয় ঘটবে।
উল্লেখ্য, দ্বিতীয় মহাযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে নিউ মেক্সিকোর সান্তা ফে’র কাছে এ গবেষণাগারটি স্থাপন করা হয় এবং বর্তমানে এ গবেষণাগারে ১১ হাজার আটশ’ কর্মী কাজ করছে। এ গবেষণাগারের প্রধান চালর্স ম্যাকমিলান জানায়, দাবানল নিয়ন্ত্রণের জন্য গত সোমবার রাতে দমকল কর্মীরা কঠোর পরিশ্রম করেছে। ঘণ্টায় ৬০ মাইলের বেশি বেগে প্রবাহিত হওয়া বাতাসের দিক বার বার পরিবর্তন হওয়ায় লস অ্যালমস প্রায় ১২ হাজার বাসিন্দাকে সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ‘লস কোনচাস’ নামের এ দাবানলে এ পর্যন্ত মার্কিন পরমাণু গবেষনাগারের দক্ষিণ এবং পশ্চিম দিকের ৪৯ হাজার একর বনভূমিসহ বিশাল অঞ্চল পুড়ে গেছে ।
এদিকে শহরবাসীদের নিরাপদস্থানে সরিয়ে নেয়া শুরু হয়েছে। খবরে বলা হয়, জরুরী ভিত্তিতে খালি করার নির্দেশ দেয়া হলে মানুষজন দ্রুত এলাকা ছাড়তে থাকে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, এসময় এক গাড়ির বাম্পারের সাথে অন্য গাড়ির বাম্পার লাগানো ছিল।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+