যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করায় সরকারকে আন্তরিক মুবারকবাদ!


যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করায় সরকারকে আন্তরিক মুবারকবাদ!
নির্বাচনী-ইশতেহার কুরআন-সুন্নাহ বিরোধী কোনো আইন পাস হবে না।
কুরআন-সুন্নাহ মোতাবেক মহান আল্লাহ পাক উনার উপর পূর্ণ আস্থা এবং বিশ্বাস রাখা ফরয; তাই সরকারকে সংবিধানে বিষয়টি পুনঃস্থাপন করতে হবে। (৩)

 

সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “এক মু’মিন আরেক মু’মিনের জন্য আয়নাস্বরূপ।”
বর্তমান মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের সরকার সাধারণ নির্বাচনের পূর্বে বাংলাদেশের শতকরা ৯৮ ভাগ মুসলমান উনাদের নিকট ওয়াদা করেছিল- তারা ক্ষমতায় আসলে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করবে এবং পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র সুন্নাহ শরীফ উনাদের বিরোধী কোনো আইন পাস হবে না। সরকারের ওয়াদা মোতাবেক সরকার দেশী এবং আন্তর্জাতিক সমস্ত চক্রান্তকে নস্যাৎ করে দিয়ে বেশ সাহসিকতার সাথে কয়েকজন যুদ্ধাপরাধীর বিচার এবং ফাঁসি কার্যকর করেছে। এজন্য সরকারকে জানাই আন্তরিক মুবারকবাদ! নির্বাচনে সরকারের আরেকটি ওয়াদা ছিল পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র সুন্নাহ শরীফ উনাদের বিরোধী কোনো আইন পাস হবে না।
এই বিষয়টির সহজ সরল ব্যাখ্যা হচ্ছে- পবিত্র কুরআন শরীফ, পবিত্র সুন্নাহ শরীফ উনাদের মোতাবেক যেই বিষয়গুলি হালাল, তাই দেশে চালু করা হবে এবং পবিত্র কুরআন শরীফ, পবিত্র সুন্নাহ শরীফ উনাদের মোতাবেক যেই বিষয়গুলি হারাম, সেই বিষয়গুলি দেশ থেকে নিষিদ্ধ করা হবে।
খলিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, যদি তোমরা মু’মিন হয়ে থাকো তবে তোমরা মহান আল্লাহ পাক উনার উপর পূর্ণ আস্থা এবং বিশ্বাস রাখ। (পবিত্র সূরা মায়েদা শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ২৩)
খলিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, যদি তোমরা মহান আল্লাহ পাক উনার প্রতি ঈমান এনে থাকো তাহলে তোমাদের উচিত মহান আল্লাহ পাক উনার উপর পূর্ণ আস্থা এবং বিশ্বাস রাখা যদি তোমরা অনুগত হয়ে থাকো। (পবিত্র সূরা ইউনুস শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ৮৪)
খলিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, তোমরা মহান আল্লাহ পাক উনার উপর পূর্ণ আস্থা এবং বিশ্বাস রাখ। যে ব্যক্তি মহান আল্লাহ পাক উনার উপর পূর্ণ আস্থা এবং বিশ্বাস রাখেন মহান আল্লাহ পাক তিনি তার জন্য যথেষ্ট। (পবিত্র সূরা ত্বলাক শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ৩)
হযরত সুফিয়ান ইবনে আবদুল্লাহ সাকাফী রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বলেন, তিনি একবার সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার নিকট আরয করলেন- ইয়া রাসূলাল্লাহ, ইয়া হাবীবাল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনি দয়া করে আমাকে পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার সম্পর্কে চূড়ান্ত কথা বলে দিন, এই বিষয়ে যাতে আর কখনো কাউকে জিজ্ঞাসা করার প্রয়োজন না হয়। তখন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করলেন, মহান আল্লাহ পাক উনার উপর পূর্ণ আস্থা এবং বিশ্বাস রাখুন এবং এই বিষয়ে ইস্তিকামত থাকুন। (মুসলিম শরীফ, মিশকাত শরীফ)
পবিত্র কুরআন শরীফ, পবিত্র সুন্নাহ শরীফ উনাদের মোতাবেক মহান আল্লাহ পাক উনার উপর পূর্ণ আস্থা এবং বিশ্বাস রাখা ফরয। তাই মহান আল্লাহ পাক উনার উপর পূর্ণ আস্থা ও বিশ্বাসের বিষয়টি সরকারকে সংবিধানে পুনঃস্থাপন করতে হবে।

 

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে