যেভাবে মুসলমানদের ধোকায় ফেলানো হয়…!!!


ইহুদীবাদী মিডিয়া মনস্তাত্ত্বিক ভাবে মুসলমানদের বিরুদ্ধচারণ করে। এদের একটি বহুলব্যবহৃত কৌশল নিয়ে আজকে আমার স্ট্যাটাস-

এ কৌশলে এরা নিজেরাই ইসলাম নিয়ে কোন থিউরী দাড় করায়। এরপর বহুল গ্রহণযোগ্য কোন বিষয়ের বিরুদ্ধে তা দাড় করিয়ে দেয়। এরপর গ্রহণযোগ্য বিষয়ের পক্ষে বলার নাম দিয়ে ইসলামের বিরুদ্ধচারণ করে। অথবা নিজেরাই কোন (বিকৃত) থিউরীকে গ্রহণযোগ্য হিসেবে প্রচার করে। এরপর ঐ থিউরীর পক্ষ নিতে গিয়ে ইসলামের বিরুদ্ধচারণ করে। কিছু উদাহরণ দেখলে বিষয়টি পরিষ্কার হবে-

উদাহরণ-১
এরা মিথ্যা গল্প ফাঁদে ইসলাম থেকে বিচ্যূত হতে মুক্তিযুদ্ধ করা হয়েছিলো। এই কথা বলে তারা ইসলাম ও মুক্তিযুদ্ধকে পরষ্পরের বিরুদ্ধে দাড় করিয়ে দেয়। এরপর মুক্তিযুদ্ধের পক্ষ নিতে গিয়ে ইসলামের বিরুদ্ধচারণ করে।

উদারহরণ-২
এরা বিজ্ঞানকে ইসলামের বিরুদ্ধে দাড় করিয়ে দেয়। তখন তাদের ফাঁদে পা দিয়ে যদি কেউ ইসলামের পক্ষ নিতে চায় তখন তাকে বিজ্ঞানবিরোধী বলে দাবি করে। অথচ বিজ্ঞান ও ধর্মের মধ্যে কোন বিরোধ নেই, বরং দুটো দুই প্লাটফর্মের জিনিস, দুটোর মধ্যে তুলনা করাই বরং বোকামি।

উদাহরণ-৩
এরা নিজেরাই বর্তমানে বিভিন্ন জঙ্গী সংগঠন তৈরী করে। এরপর জঙ্গি সংগঠনগুলোকে ইসলামের ধারকবাহক বানিয়ে তাদের বিরুদ্ধে বলতে গিয়ে ইসলামের বিরুদ্ধচারণ করে।

উদাহরণ-৪
এরা নিজেদের বানানো বিকৃত কালচারকে আধুনিকতার নাম দেয়। এরপর ইসলাম ও তাদের বানানো আধুনিকতা পরষ্পরের বিরুদ্ধে দাড় করিয়ে দেয়। এরপর কথিত আধুনিকতার পক্ষ বলার নাম দিয়ে ইসলামকে ব্যাকডেটেড বানানার চেষ্টা করে।

উদাহরণ-৫
এরা মিডিয়ার মাধ্যমে মানবতাবাদ, নারীবাদ, সংস্কৃতমনা, সুশিল সমাজ, মুক্তমনা ইত্যাদি বিভিন্ন তত্ত্ব দাড় করায়। যদিও এগুলো প্রত্যেকটি অনৈতিকাতায় পরিপূর্ণ। যেহেতু ইসলামের যাবতীয় অনৈতিকতার বিরুদ্ধচারণ করা হয়েছে, তাই এসব বানোয়াট বিকৃতমনা তত্ত্বের বিরুদ্ধে ইসলামের বিভিন্ন দলিল এরা নিজেরাই সংগ্রহ করে। এরপর সে সব বিকৃতমনা থিউরীর পক্ষ নিতে গিয়ে ইসলামের বিরুদ্ধচারণ করে।

এ ধরনের আরো অনেক উদারহণ আছে। আপনি নিজেই মিলিয়ে নিলে আরো অনেক বের হবে। সত্যিই বলতে, পৃথিবী জুড়ে এ সব মনস্তাত্ত্বিক অস্ত্র প্রয়োগ ও গবেষণায় সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছে ইহুদীরা। আবার, ইহুদীদের অনেকগুলো মৌলিক কাজের মধ্যে একটি কাজ হচ্ছে ইসলামের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করা। বিশেষ করে খ্রিস্টান ধর্ম বিকৃত করে দেয়ার পর ইহুদীদের সামনে ইসলাম ছাড়া আর কোন প্রতিদ্বন্দ্বী অবশিষ্ট নেই। আর সেই ইসলামকে হেয় করার জন্য তারা মিডিয়ার মাধ্যমে মনস্তাত্ত্বিক কৌশলগুলো প্রয়োগ ঘঠায়।

বর্তমান সময়ে বাংলাদেশে অনেক মিডিয়া (যেমন: প্রথম আলো, বিবিসি বাংলা, বাংলা ট্রিবিউন, একাত্তর টিভিসহ অধিকাংশ টিভি চ্যানেল) এই সব সাইকোলোজির থিউরী অনুসারে সংবাদ প্রচার করায় একটি বিষয় নিশ্চিত হওয়া যায়, এসব মিডিয়ার অফিসে ঐ ইহুদী মনোবিদ কর্তৃক প্রশিক্ষিত কেউ না কেউ বসে আছে। নয়ত এ সব সুপ্রশিক্ষত সাইকোলোজির থিউরী প্রয়োগ করার কথা নয়। সাধারণ মানুষের চোখে বিষয়গুলো এড়িয়ে গেলেও, যারা বোঝার তারা ঠিকই বুঝে।

Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে