যেসকল ইমামরা হারাম ছবির বিরুদ্ধে সতর্ক করেনা, তারা মুনাফিক; এদের চিনে রাখুন


আখিরী রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “যেখানে প্রাণীর ছবি থাকে সেখানে রহমত উনার ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনারা প্রবেশ করেন না।” অথচ অনেক এলাকার মসজিদ উনার প্রবেশদ্বারেই রয়েছে অশ্লীল ছবি সম্বলিত বিলবোর্ড। প্রতিদিন এই সমস্ত মসজিদসমূহে শতশত মুছল্লী নামায আদায় করেন। কিন্তু কখনো এখানকার তথাকথিত ইমাম সাহেবরা বিলবোর্ডগুলো সরানো তো দূরের কথা ছবি থাকলে যে নামায দোহরানো ওয়াজিব তাও জানিয়ে দেয় না।

মূলত, এই সমস্ত ইমামরাই হচ্ছে উলামায়ে ‘সূ’। তারা হচ্ছে কাফির-মুশরিকদের কেনা গোলাম। যেহেতু কাফির-মুশরিকরা মুসলমান উনাদের প্রকাশ্য শত্রু, তাই তারা এই সমস্ত উলামায়ে ‘সূ’দের দ্বারা মুসলমান উনাদের বিভ্রান্ত ও গুমরাহ করতে চায়। তিনি সত্যিকার ইমাম; যিনি মুসলমান উনাদের ঈমান-আক্বীদা ও আমল হিফাযতে সচেষ্ট থাকেন এবং হক্বটি জানিয়ে দেন।

কাজেই ছবি, বেপর্দা, টিভি চ্যানেল, গান-বাজনা, খেলাধুলা, লংমার্চ হরতাল, গণতন্ত্র ইত্যাদিসহ শরীয়ত উনার বিরোধী প্রত্যেকটি বিষয় সম্পর্কে যে সমস্ত ইমাম মুসলমান উনাদের সতর্ক করে দেয় না প্রকৃতপক্ষে তারাই মুনাফিক তথা উলামায়ে ‘সূ’।

 

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে