যে আমেরিকা নিজ দেশের সন্ত্রাস নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ, সেদেশ বাংলাদেশের সন্ত্রাস দমন করবে কিভাবে?


কথিত আইএস সন্ত্রাসী ও চরমপন্থীদের দমনের অজুহাতে বাংলাদেশের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে প্রশিক্ষণ ও বিশেষজ্ঞ সহায়তা(!) দেয়ার প্রস্তাব করেছে বন্দুক হামলায় জর্জরিত দেশ যুক্তরাষ্ট্র। সম্প্রতি দেশটির দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিশা দেশাই ঢাকা এসে এমন প্রস্তাব করেছে। এটাকে নিঃসঙ্কোচে ‘হাস্যকর প্রস্তাব’ বলা যেতে পারে। কারণ- খোদ আমেরিকাতেই বন্দুক হামলার ঘটনা এতোটা ভয়াবহ যে প্রায় প্রতিদিনই কোথাও কোথাও বন্দুক হামলার ঘটনা ঘটে। আমেরিকার ওয়াশিংটন থেকে প্রকাশিত ‘গান ভায়োলেন্স আর্কাইভ’ নামক একটি ওয়েব সাইটের তথ্যানুযায়ী চলতি বছরেই (১০ জুন ২০১৬ পর্যন্ত) দেশটিতে বন্দুক হামলা বা গুলাগুলির ঘটনা ঘটেছে ২৭ হাজার ৫৭৫বার। এরমধ্যে আবাসিক বাড়িতে বন্দুক হামলা ১১৬৫টি, ম্যাস শুটিং (বড় ধরনের) বন্দুক হামলা ১৭৯টি। এসব ঘটনায় মারা গেছে ৭১৮৭ জন, আহত ১৪৮১৩ জন। গুলিতে ১১ বছরের নিচে শিশুর মৃত্যু হয়েছে ৩১৯, সন্ত্রাসীর গুলিতে পুলিশ অফিসার নিহত ১৭২ জন, পুলিশের গুলিতে সন্ত্রাসী নিহত ৯৬৫ জন। উল্লেখ্য, গান ভায়োলেন্স আর্কাইভ ওয়েবসাইটে উল্লেখিত রয়েছে শতভাগ গুলি হামলার ঘটনা তারা হিসাব করতে পারে না অর্থাৎ এর বাইরেও অনেক ঘটনা ঘটেছে। বিবিসিসহ বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয় যে, শুধুমাত্র ২০১৫ সালেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ৪৮ হাজারেরও বেশি ছোট-বড় সংঘর্ষ ও হামলার ঘটনা ঘটেছে, যার মধ্যে ৩৫৫টিই ছিলো নির্বিচারে গুলি বর্ষণের ঘটনা। এরমধ্যে ৪৫টি হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন স্কুলে। এসব হামলায় ১২ হাজার ২১২ জন নিহত হয়েছে বলে মিডিয়া প্রকাশ করেছে, তবে প্রকৃত সত্য তারচেয়েও বহুগুণে বেশি। ২০১৫ সালে আগ্নেয়াস্ত্রের গুলিতে নিহতের সংখ্যা ১৩,২৮৬ জন (তথ্যসূত্র: বাংলানিউজ২৪, ৩ ডিসেম্বর) গত বছর (২০১৫) যুক্তরাষ্ট্রের ওরেগণ অঙ্গরাজ্যে বন্দুকধারীর গুলিতে ১০ শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় ওবামা জাতির উদ্দেশ্যে এক ভাষণে সন্ত্রাস দমনে অপারগতা প্রকাশ করেছে। সে বলেছে, “কিছুদিন পর পরই গুলিতে গণহত্যার ঘটনা ‘নৈমিত্তিক’ হয়ে গেছে। কিন্তু তা রোধে কোনো কার্যকর পদক্ষেপ নিতে পারিনি আমরা। বন্দুকধারীর গুলিতে গণহত্যা এড়াতে আমি ব্যর্থ হয়েছি।” (সূত্র: ইত্তেফাক, ৪ অক্টোবর, ২০১৫ঈ.) আমেরিকার ইতিহাসে কোনো সরকারই নিজ দেশের সন্ত্রাসীদের বন্দুক হামলা বন্ধ করতে পারেনি। এখনো তারা ব্যর্থ। সূতরাং তাদের সহযোগিতা আমাদের দরকার নেই। তাদের কথিত প্রশিক্ষক ও বিশেষজ্ঞরা নিজ দেশের পুলিশদের প্রশিক্ষণ দিক।

 

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে