‘রহমতুল্লিল আলামীন’ লক্বব মুবারক সম্পর্কে এক চরম জাহিল, গণ্ডমূর্খ, মিথ্যাবাদী, ধোঁকাবাজ এবং প্রতারকের জিহালতী, মূর্খতা, মিথ্যাচার, ধোঁকা, প্রতারণা ও অপব্যাখ্যার দলীলভিত্তিক দাঁতভাঙ্গা জবাব


সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খতামুন নাবিয়্যীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি খাছভাবে ‘রহমতুল্লিল আলামীন’। সুবহানাল্লাহ! আর উনার সম্মানার্থে উনার ক্বায়িম মাক্বাম হিসেবে সমস্ত হযরত নবী-রসূল আলাইহিমুস সালাম উনারা এবং হযরত আউলিয়ায়ে কিরাম রহমতুল্লাহি আলাইহিম, হযরত মুজাদ্দিদ রহমতুল্লাহি আলাইহিম উনারাও ‘রহমতুল্লিল আলামীন’। সুবহানাল্লাহ! এটাই সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার ফতওয়া। সুবহানাল্লাহ!
এই বিষয়ে যামানার তাজদীদী মুখপত্র দৈনিক আল ইহসান শরীফ-এ সম্মানিত কুরআন শরীফ, সম্মানিত হাদীছ শরীফ, ইজমা ও ক্বিয়াস শরীফ উনাদের অকাট্য দলীল-আদিল্লাহভিত্তিক ধারাবাহিক দুইটি লেখা পত্রস্থ হয়েছে।
এক চরম জাহিল, গ- মূর্খ, মিথ্যাবাদী, ধোঁকাবাজ এবং প্রতারক উক্ত ধারাবাহিক লেখার প্রথম কিস্তির ভিডিও শুনে, নিজের ভ্রান্ত মতকে ছাবিত করার লক্ষ্যে উঠেপড়ে লাগে। অবশেষে সে তার ভ্রান্ত মত প্রতিষ্ঠা করার জন্য বিভিন্ন মিথ্যা, প্রতারণা ও ধোঁকাবাজীর আশ্রয় নিয়েছে এবং সম্মানিত কুরআন শরীফ, সম্মানিত হাদীছ শরীফ, ইজমা ও ক্বিয়াস শরীফ উনাদের অপব্যাখ্যা করে নানা চূ-চেরা, ক্বিল-ক্বাল করেছে। সে তার আলোচনার মাধ্যমে বিশ্ববাসীর নিকট প্রমাণ করে দিয়েছে যে, সে হচ্ছে একটা চরম জাহিল, গণ্ড মূর্খ, মিথ্যাবাদী, ধোঁকাবাজ, প্রতারক এবং সম্মানিত কুরআন শরীফ, সম্মানিত হাদীছ শরীফ, ইজমা ও ক্বিয়াস শরীফ উনাদের অপব্যাখ্যাকারী। না‘ঊযুবিল্লাহ!
আমরা এই বিষয়টি বিশ্ববাসীর নিকট অত্যন্ত সুস্পষ্টভাবে তুলে ধরবো, যাতে করে সকলে সঠিক বিষয়টি জেনে নিজেদের ঈমান, আমল ও আক্বীদাকে হিফাযত করে ইহকাল ও পরকালে হাক্বীক্বী কামিয়াবী হাছিল করতে পারে।
মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদেরকে তাওফীক্ব দান করুন। আমীন!
প্রথমে আমরা আলোচনা করবো ‘রহতুল্লিল আলামীন’ লক্বব মুবারক বিষয়ে হযরত ইমাম আবূ মানছূর মাতুরীদী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি কী বলেছেন? আর এ বিষয়ে এই চরম জাহিল, গণ্ড মূর্খ ও প্রতারকের কি কি জিহালতী ও মূর্খতা প্রকাশ পেয়েছে এবং সে কোন কোন ধোঁকা ও প্রতারণার আশ্রয় নিয়েছে। আর সে কি কি অপব্যাখ্যা করেছে।
‘রহতুল্লিল আলামীন’ লক্বব মুবারক সম্পর্কে সম্মানিত হানাফী মাযহাবের আক্বাইদের ইমাম, ৪র্থ হিজরী শতকের মুজাদ্দিদ, ইমামু আহলিস সুন্নাহ ওয়াল জামায়াহ্, মুজাদ্দিদে যামান, হযরত ইমাম আবূ মানছূর মাতুরীদী রহমতুল্লাহি আলাইহি (বিছাল শরীফ : ৩৩৩ হিজরী শরীফ) তিনি উনার সর্বজনমান্য ও গ্রহণযোগ্য বিশ্বখ্যাত তাফসীরগ্রন্থ ‘তাফসীরে মাতুরীদী শরীফ উনার ৭ম খন্ডের ৩৮৩ পৃষ্ঠায়’ অত্যন্ত সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ করেন,
وَقَوْلُهٗ عَزَّ وَجَلَّ وَمَاۤ اَرْسَلْنٰكَ اِلَّا رَحْمَةً لِّلْعٰلَمِيْنَ جَائِزٌ اَنْ يَّكُوْنَ كُلُّ رُسُلِ اللهِ رَحْمَةً مِّنَ اللهِ لِلْعَالَـمِيْنَ وَكَذٰلِكَ كُلُّ كُتُبِ اللهِ رَحْمَةٌ لِّلْعَالَـمِيْنَ عَلـٰى مَا ذُكِرَ فِـىْ عِيْسٰى عَلَيْهِ السَّلَامُ وَرَحْمَةً مِّنَّا.
অর্থ: “মহান আল্লাহ পাক উনার সম্মানিত কালাম মুবারক- ‘আর (আমার হাবীব, হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম!) নিশ্চয়ই আমি আপনাকে ‘রহমতুল্লিল আলামীন’ হিসেবে প্রেরণ করেছি।’ সুবহানাল্লাহ! সমস্ত হযরত নবী-রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে মহান আল্লাহ পাক উনার পক্ষ থেকে ‘রহমতুল্লিল আলামীন’ বলা জায়িয রয়েছে। সুবহানাল্লাহ! অনুরূপভাবে মহান আল্লাহ পাক উনার সমস্ত কিতাবসমূহ তথা সমস্ত আসমানী কিতাবসমূহ (অর্থাৎ মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র কুরআন শরীফসহ পূর্ববর্তী সমস্ত আসমানী কিতাবসমূহ) ‘রহমতুল্লিল আলামীন’। আর তা এই সম্মানিত ও পবিত্র আয়াত শরীফ উনার উপর ভিত্তি করে যে, হযরত ঈসা আলাইহিস সালাম উনার শান মুবারক-এ সম্মানিত কুরআন শরীফ উনার মধ্যে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘তিনি আমার পক্ষ থেকে রহমত স্বরূপ।” সুবহানাল্লাহ!
এখানে হযরত ইমাম আবূ মানছূর মাতুরীদী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি অত্যন্ত সুস্পষ্টভাবে বর্ণনা করেছেন যে, সমস্ত হযরত নবী-রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে ‘রহমতুল্লিল আলামীন’ বলা জায়েয রয়েছে। সুবহানাল্লাহ! অর্থাৎ সমস্ত হযরত নবী-রসূল আলাইহিমুস সালাম উনারাও ‘রহমতুল্লিল আলামীন’। সুবহানাল্লাহ!
অথচ এই চরম জাহিল, গণ্ডমূর্খ, অপব্যাখ্যাকারী, মিথ্যাবাদী, ধোঁকাবাজ ও প্রতারকটা বলেছে যে, হযরত ইমাম আবূ মানছূর মাতুরীদী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি নাকি এখানে বলেছেন, রসূলগণ রহমতুল্লিল আলামীন হতে পারেন। অথচ এই ইবারতে হতে পারেন এরূপ সম্ভবনাময় কোন শব্দই নেই। এখানে স্পষ্টভাবে উল্লেখ আছে-
جَائِزٌ اَنْ يَّكُوْنَ كُلُّ رُسُلِ اللهِ رَحْمَةً مِّنَ اللهِ لِلْعَالَـمِيْنَ
সমস্ত হযরত নবী-রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে ‘রহমতুল্লিল আলামীন’ বলা জায়েয রয়েছে। সুবহানাল্লাহ! (অর্থাৎ সমস্ত হযরত নবী-রসূল আলাইহিমুস সালাম উনারাও ‘রহমতুল্লিল আলামীন’।) সুবহানাল্লাহ!

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে