রাজাকার।


একাত্তরে জামাত-৯
দৈনিক সংগ্রাম থেকে :
মুক্তিযোদ্ধাদের খতম করার হুকুম দিয়েছিলো নিজামী
*********************************************************
 
একাত্তরের ১৫ সেপ্টেম্বর ফরিদপুর ছাত্রসংঘের এক অনুষ্ঠানে মইজ্যা রাজাকার মুজাহিদ বলেছিলো, ‘ঘৃণ্য শত্রু ভারতকে দখল করার প্রাথমিক পর্যায়ে আমাদের আসাম দখল করতে হবে। এজন্য আপনারা সশস্ত্র প্রস্তুতি গ্রহণ করুন।’ ওই দিন দৈনিক সংগ্রাম-এ প্রকাশিত মুজাহিদের একটি নিবন্ধের শিরোনাম ছিল- ‘অস্ত্রের বিরুদ্ধে অস্ত্র, যুক্তি নয়’। ২৫ অক্টোবর এক অনুষ্ঠানে পাকিস্তানের ছাত্র-জনতার প্রতি দষ্কৃতকারী (মুক্তিযোদ্ধা) খতম করার দৃঢ় অঙ্গীকার নিয়ে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছিলো সে। পরদিন দৈনিক সংগ্রাম-এ প্রকাশিত হয় এ খবর।
জামাতই যে ঘাতক রাজাকার, আল-বাদর বাহিনী গঠন করে তার আরো প্রমাণ আছে দৈনিক সংগ্রাম-এর পাতায়। একাত্তরের ৬ আগস্ট পত্রিকাটিতে ‘রংপুর জেলায় ৬ হাজারেরও বেশি রেজাকার ট্রেনিং নিচ্ছে’ শীর্ষক সংবাদে বলা হয়, ‘পাকিস্তান জামাতের রংপুর জেলার সেক্রেটারি মালানা কাজী নজমুল হুদা রেজাকার বাহিনীর সংগঠক।’ এতে আরো বলা হয়, ‘রংপুর শহর জামাতের আমীর জনাব মুখলেসুর রহমান, জামাতের সাংগঠনিক সম্পাদক জনাব জবানউদ্দিন আহমদ ও জেলা জামাতের নায়েবে আমীর প্রিন্সিপাল রুহুল ইসলামও তাদের উপর ন্যস্ত বিভিন্ন থানা এলাকা সফর করে রেজাকার বাহিনী গঠন করছে এবং বিভিন্ন ট্রেনিং কেন্দ্র তদারক করছে।’
সে বছর ১৬ আগস্ট দৈনিক সংগ্রাম-এ প্রকাশিত এক খবরে কামারুজ্জামানের পরিচয় দেয়া হয় ‘আল-বাদর বাহিনীর প্রধান সংগঠক’ হিসেবে। ওই খবরে বলা হয়, ‘পাকিস্তানের ২৫তম আজাদী দিবস উপলক্ষে গত শনিবার মোমেনশাহীতে আল-বাদর বাহিনীর উদ্যোগে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। স্থানীয় মুসলিম ইনস্টিটিউটে আয়োজিত এ সিম্পোজিয়ামে সভাপতিত্ব করে আল-বাদর বাহিনীর প্রধান সংগঠক জনাব কামারুজ্জামান।’
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে