রাজাকার মালানা সুবহানের নির্দেশে ৪শ’ ব্যক্তিকে হত্যা করা হয়-৩


রাজাকার মালানা সুবহানের নির্দেশে ৪শ’ ব্যক্তিকে হত্যা করা হয়-৩
আল ইহসান ডেস্ক:
একাত্তরের ২৫ মার্চ ভয়াল রাতে রাজধানী ঢাকার মতো পাবনাতেও পাকিস্তানি বাহিনী অতর্কিতভাবে হামলা চালায় এদেশের নিরীহ মানুষের উপর। প্রত্যক্ষদর্শী এক নারী জানান, স্থানীয় দালালদের সহযোগিতায় ২৫ মার্চ রাত থেকেই পাবনার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ধরে নিয়ে আসে পাকিস্তানি সেনাবাহিনী। ২৬ মার্চ বিকেল আনুমানিক ৩টায় এ নারী পাবনা রায়েরবাজারের প্রধান সড়কের পাশে একটি পুরনো বাড়ির দোতলার জানালায় দাঁড়িয়ে ছিলেন। সেখান থেকেই জানালার ফাঁক দিয়ে দেখছিলেন ভীত-সন্ত্রস্ত পাবনা শহর। হঠাৎ তিনি খেয়াল করেন পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর একটি লরি রাস্তার উপর থমকে দাঁড়ায়। লরির পেছনে লম্বা দড়ি দিয়ে বাঁধা প্রায় ১০০ মানুষ, যাদের পাকা রাস্তার উপর দিয়ে টেনে আনা হয়েছে। প্রত্যেক বন্দির জামা-কাপড় ছিন্নভিন্ন, তাদের হাঁটু থেকে পায়ের পাতা পর্যন্ত সাদা হাড় দেখা যাচ্ছিল। শরীর ছিল রক্তে মাখামাখি। লরির ভেতরে পাকিস্তানি আর্মিদের সঙ্গে মালানা আবদুস সুবহানও ছিলো বসা অবস্থায়। যাদের সিমেন্টের রাস্তার উপর দিয়ে টেনেহিঁচড়ে আনা হচ্ছিল তাদের মধ্যে তিনি পাবনার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আবু সাঈদ তালুকদার, অ্যাডওয়ার্ড কলেজের প্রফেসর হারুন এবং আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট আমিনউদ্দিনকে চিনতে পেরেছিলেন। লরি থেকে নেমে কিছু সৈন্য কয়েকটি দালানের উপর ওড়ানো বাংলাদেশের পতাকা নামিয়ে পোড়ানোর ব্যবস্থা করে চলে যায়।
Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে