রাজাকার মালানা সুবহানের নির্দেশে ৪শ ব্যক্তিকে হত্যা করা হয়-২


রাজাকার মালানা সুবহানের নির্দেশে ৪শ ব্যক্তিকে হত্যা করা হয়-২
আল ইহসান ডেস্ক:
পাবনা জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার হাবিবুর রহমান জানান, একাত্তরে আল-বাদর কমান্ডার মাও. আবদুস সুবহান নীতিনির্ধারক হিসেবে পাবনায় গণহত্যা, অগ্নিসংযোগ, লুণ্ঠনসহ সব অপরাধে পাকিস্তান বাহিনীর অন্যতম সহায়তাকারী ছিলো। তার নির্দেশ ও প্রত্যক্ষ উপস্থিতিতে পাবনা জিলা স্কুলের আরবী বিভাগের প্রধান মৌলভী কসিমুদ্দিনকে হত্যা করা হয়। এছাড়া পাবনার অ্যাডওয়ার্ড কলেজের প্রফেসর হারুন, সাবেক এমএনএ এবং আওয়ামী লীগ নেতা আমিনুদ্দিন, ব্যবসায়ী আবু সাইদ তালুকদারসহ শহরের কালাচাঁদপাড়া এলাকায় তার নেতৃত্বে ১১ ব্যক্তিকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছিল। তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধে পরাজয় অবধারিত বুঝতে পেরে ১৯৭১ সালের ৪ ডিসেম্বর মাও. আবদুস সুবহান জামাতের ৩০০ রাজাকারের সঙ্গে দেশ ছেড়ে পালিয়ে পাকিস্তানের করাচি যায়। সেখান থেকে তারা সউদী আরব পালিয়ে যায়।
মালানা সুবহানের বিরুদ্ধে ১৯৯৪ সালে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি প্রকাশিত জাতীয় গণতদন্ত কমিশনের দ্বিতীয় প্রতিবেদনে (সংক্ষিপ্ত ভাষ্য) বলা হয়, ‘সুবহানের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় পাবনার আল-বাদর, রাজাকার এবং শান্তিকমিটি গঠিত হয়। সে (সুবহান) উর্দু ভাষায় অনর্গল কথা বলতে পারতো বলে সহজেই পাকিস্তানি বাহিনীর খুব কাছাকাছি আসতে সমর্থ হয় এবং নীতিনির্ধারক হিসেবে স্বাধীনতা যুদ্ধবিরোধী ভূমিকায় তার সার্বিক কর্মকান্ড পরিচালনা করে।’
Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে