রাষ্ট্রীয় কোষাগারের অর্থ খরচের সুস্পষ্ট জবাবদিহিতা প্রাপ্তি জনগণের মৌলিক অধিকার


সরকার দেশের কর্ণধার, পরিচালক। একটি সরকার দেশের মালিক নয়, জাতির প্রতিনিধি মাত্র। তাকে রাষ্ট্রীয় যে কোনো কাজ করতে হলে যেমন জাতিকে অবহিত করতে হবে; অনুরূপ রাষ্ট্রীয় কোষাগারের আয়-ব্যয়ের হিসাবও সুস্পষ্টভাবে দিতে হবে। সরকারের ইচ্ছা হলেই কোনো খাতে রাষ্ট্রীয় টাকা ব্যয় করতে পারবে না জাতির অবগতি ও অনুমতি ব্যতীত। এ দেশের শতকরা ৯৮ ভাগ মুসলমান। মুসলমানের টাকা পূজা বা হারাম কোনো কাজে ব্যয় করা যাবে না। তবে যে কোনো ইসলামী কাজে ও মুসলমানদের প্রয়োজনেই ব্যবহার করতে হবে। মুসলমানদের সবচেয়ে বড় দ্বীনি উৎসব, সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ, সাইয়্যিদে ঈদে আ’যম, সাইয়্যিদে ঈদে আকবর, পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার উপলক্ষে সরকারি উদ্যোগে ব্যাপকভাবে খরচ করা, ওয়াজ শরীফ, পবিত্র মীলাদ শরীফ ও আলোচনা মজলিসসহ ব্যাপক প্রচার প্রসারের কাজে ব্যয় করা শুধু বৈধই নয়, বরং ফরয-ওয়াজিব।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে