রোযাদের ব্যক্তিকে ইফতার করানোর ফযীলত প্রসংগে…


একজন রোযাদার ব্যক্তি অনেক ফযীলতের অধিকারী। কেউ যদি চায় একজন রোযাদার ব্যক্তির সমান ফযীলত তার আমলনামায় যোগ হোক তাহলে সে যেন রোজাদারকে ইফতার করায়।
কেউ যদি কোনো রোযাদার ব্যক্তিকে এক চুমুক দুধ অথবা এক চুমুক পানি অথবা একটি খেজুর দ্বারা ইফতার করায় তবে সেটা তার
১. গুনাহসমূহের ক্ষমাস্বরূপ হবে
২. তার জন্য জাহান্নামের আগুন থেকে মুক্তির কারণ হবে এবং
৩. তাকে উক্ত রোযাদারের সমান ছাওয়াব দেয়া হবে অথচ রোযাদারের ছাওয়াব হতে বিন্দু মাত্রও কমানো হবে না।
সুবহানাল্লাহ
এখন কেউ যদি তৃপ্তি সহকারে ইফতার করায় তবে তার ফায়ছালা কি হবে?? সেটাওও হাদীস শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে,”যে ব্যক্তি কোনো রোযাদারকে তৃপ্তির সহিত আহার করাবে মহান আল্লাহ পাক তিনি তাকে আমার হাউজে কাউছার হতে পানি পান করাবেন ফলে বেহেশতে প্রবেশ করা পর্যন্ত সে কখনো তৃষ্ণার্ত হবে না।”
সুবহানাল্লাহ অর্থাৎ বাকি ফযীলতসমূহের পাশাপাশি অতিরিক্ত ফযীলত হিসেবে ব্যক্তি সম্মানিত হাউজে কাউছার উনার পানি পান করার সৌভাগ্য অর্জন করবেন। সুবহানাল্লাহ

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে