রোযা রেখে ইঞ্জেকশন,ইনসুলিন,ইনহেলার নেয়া যাবে??


ডাক্তারের কাজ ডাক্তারী করা
ফতওয়া দেয়া না!
অথচ পান্ডিত্যের নিদর্শন রাখতে গিয়ে কিছু ডাক্তার মনগড়াভাবে ফতওয়া দেয় আর কিছু দুনিয়াদার আলিম তথা উলামায়ে ছু’ এতে মদদ দেয়!
নাউযুবিল্লাহ!
এরা সাধারণ লোকদেরকে বিভ্রান্ত করে এই বলে যে,রোযাবস্থায় ইঞ্জেকশন,ইনহেলার,ইনসুলিন ইত্যাদি নিলে রোযা ভংগ হয় না!
নাঊযুবিল্লাহ!
অথচ পবিত্র হাদীছ শরীফে ইরশাদ মুবারক হয়েছে-
ﻋَﻦِ ﺣَﻀَﺮَﺕْ ﺍﺑْﻦِ ﻋَﺒَّﺎﺱٍ ﺭَﺿِﻰَ ﺍﻟﻠﻪُ ﺗَﻌَﺎﻟٰﻰ ﻋَﻨْﻪُ ﻗَﺎﻝَ ﺍِﻧَّـﻤَﺎ ﺍﻟْﻮُﺿُﻮﺀُ ﻣِـﻤَّﺎ ﺧَﺮَﺝَ ﻭَﻟَﻴْﺲَ ﻣِـﻤَّﺎ ﺩَﺧَﻞَ ﻭَﺍِﻧَّـﻤَﺎ ﺍﻟْﻔِﻄْﺮُ ﻣِـﻤَّﺎ ﺩَﺧَﻞَ ﻭَﻟَﻴْﺲَ ﻣِـﻤَّﺎ ﺧَﺮَﺝَ
অর্থ : “হযরত ইবনে আব্বাস রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু বর্ণনা করেন, কিছু ভিতরে প্রবেশ করলে রোযা ভঙ্গ হয়ে যাবে, বের হলে রোযা ভঙ্গ হবেনা।” (সুনানুল কবীর লি বায়হাক্বী ১ম খন্ড ১১৬ পৃষ্ঠা, হাদীছ শরীফ নং ৫৭৯; সুনানুল কবীর লি বায়হাক্বী ৪র্থ খন্ড ২৬১ পৃষ্ঠা, হাদীছ শরীফ নং ৮৫১২)
সুতরাং ইঞ্জেকশন,ইনহেলার,ইনসুলিন রোযাবস্থায় গ্রহণ রোযা ভংগের কারণ।
তাই রোযাবস্থায় এসব গ্রহণ হতে বিরত থাকুন।
উল্লেখ্য,অসুস্থ ব্যক্তির জন্য মহান আল্লাহ পাক রুখসত দিয়েছেন,সে ফিদিয়া দিতে পারবে,পরবর্তীতে ক্বাযা করে নিবে- রোযা রাখতে অপারগ হলে।কাজেই যেভাবে নির্দেশ সেভাবেই কাজ করা হোক।আল্লাহ পাক যা সহজ করেছেন তা বান্দার জন্য কঠিন করা উচিত হবে না…

c&&

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে