শানে লখতে জিগারে মুজাদ্দিদে আ’যম, ক্বায়িম-মাক্বামে যাহরা আলাইহাস সালাম, সাইয়্যিদাতুন নিসা, আওলাদে রসূল শাহযাদী ছানী হযরত নিবরাসাতুল উমাম আলাইহাস সালাম ০৬


আওলাদে রসূল, তাওশিয়াহ, তাকরীমাহ, তাক্বিয়্যাহ, তাযকিয়্যাহ হযরত শাহযাদীয়ে ছানী আলাইহাস সালাম তিনি সাধারণ কোনোও মহিলাদের মতো নন; এমনকি সাধারণ কোনো পুরুষও উনার সমকক্ষ নয় :

যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি বলেন, “হে উম্মুল মুমিনীন আলাইহিন্নাস সালাম! আপনারা অন্য কোনো মহিলাদের মতো ননসুবহানাল্লাহ!
আওলাদে রসূল, তাওশিয়াহ, তাকরীমাহ, তাক্বিয়্যাহ, তাযকিয়্যাহ হযরত নিবরাসাতুল উমাম আলাইহাস সালাম তিনি হযরত উম্মুল মুমিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের পরিপূর্ণ ক্বায়িম-মাক্বাম হওয়ার কারণে তিনিও অন্য কোনোও মহিলাদের মতো ননহযরত উম্মুল মুমিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদেরকে কেউ যদি দেখতেন, তাহলে কারও সাধ্য ছিলো না যে- আওলাদে রসূল, তাওশিয়াহ, তাকরীমাহ, তাক্বিয়্যাহ, তাযকিয়্যাহ হযরত নিবরাসাতুল উমাম আলাইহাস সালাম উনার আচার-ব্যবহার, চলাফেরা, কথাবার্তা, উঠাবসা, হাঁটাচলা, আহার-বিহার, শয়ন-স্বপন, ইলম-প্রজ্ঞা, মুয়ামিলাত-মুয়াশিরাত, ইবাদত-বন্দেগী, তাক্বওয়া-পরহেজগারিতা, মানবকল্যাণ, দান-সদকা, কুল-কায়িনাতের প্রতি দয়া-মায়া প্রদর্শন ইত্যাদি যাবতীয় বিষয়ে উনাদের মধ্যে পার্থক্য নির্ণয় করতে পারেসুবহানাল্লাহ
এজন্য মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার শান মুবারক-এ ইরশাদ মুবারক করেন, “উনার সমকক্ষ কোনো পুরুষও নন” (পবিত্র সূরা আলে ইমরান শরীফ)
এতো বেমেছাল ফাযায়িল-ফযীলত, বুযুর্গী-সম্মান, শান-মান মহান আল্লাহ পাক তিনি উনাকে সৃষ্টিগতভাবেই হাদিয়া করেছেনসুবহানাল্লাহ! যা কুল-কায়িনাতের পক্ষে চিন্তা করাও যথেষ্ট কষ্টসাধ্য ব্যাপারযাঁদের মহান আল্লাহ পাক উনার এবং নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের সাথে বেমেছাল তায়াল্লুক-নিছবত আছে উনারাই কেবল আওলাদে রসূল, তাওশিয়াহ, তাকরীমাহ, তাক্বিয়্যাহ, তাযকিয়্যাহ হযরত নিবরাসাতুল উমাম আলাইহাস সালাম উনার মুবারক শান কিছুটা উপলব্ধি করতে পারেনসাধারণ মানুষ বুঝবে কি করে? বুঝার সাধ্যই বা কোথায়?
(চলবে ১৯ ই রবিউছ ছানী শরীফ উনার সম্মানার্থে ১৯ পর্যন্ত)

একসাথে পেতে ক্লিক করুন

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+