শুধুমাত্র কাফিররাই মৌলবাদী; মুসলমানরা নয়


তাবৎ বিধর্মীরা শাব্দিক অর্থে মৌলবাদী। কোনো মুসলমানই কস্মিনকালেও মৌলবাদী নয়। মৌলবাদীরা- গোঁড়া, অন্ধ, অসভ্য, বর্বর, হিংস্র, উগ্র, আগ্রাসী, যালিম, কুসংস্কারাচ্ছন্ন হয়। যেমন মৌলবাদী খ্রিস্টানরা তথা আগ্রাসী ক্রুসেডার খ্রিস্টানরা মুসলিম বিশ্বে তান্ডব চালিয়েছে, এখনো চালিয়ে যাচ্ছে। মৌলবাদীরা ভয়ঙ্কর প্রকৃতির সন্ত্রাসী। মৌলবাদী কাফির-বেদ্বীনদের (ইহুদী-খ্রিস্টান, হিন্দু-বৌদ্ধ, মজুসীসহ তাবত বিধর্মী) ভয়াবহ আগ্রাসন ও যুলুমের ক্ষত মুসলিম বিশ্বের সর্বত্র দেখা যাচ্ছে। তারপরও একশ্রেণীর জাহিল মুসলমান নিজেদের মৌলবাদী (মূল থেকে উৎসারিত) বলে দাবি করতে সাচ্ছন্দ্য বোধ করে। অথচ কোনো মুসলমান কখনোই মৌলবাদী নয় এবং মৌলবাদীরা কখনোই মুসলমান নয়। কেননা শুধুমাত্র মুসলমানরাই আলোকিত ও সভ্য; মৌলবাদীরা নয়।

মৌলবাদ বা মৌলবাদী সম্পর্কে জানতে এনসাইক্লপিডিয়াগুলো খুলে দেখলেই বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যাবে। তবে মৌলবাদী দাবিদার জাহিলরা অন্ধ-বুজদিল হওয়ায় দেখতে ও উপলব্ধি করতে ব্যর্থ হবে স্বীয় গোঁড়ামীর কারণে।

মৌলবাদ শব্দের শাব্দিক বা আভিধানিক অর্থ হলো- ১. ধর্ম বা অন্য কোনো মতবাদের অবিকৃত মূলতত্ত্ব; ২. অন্ধ বা গোঁড়ামিপূর্ণ ধর্মবিশ্বাস (বাংলা অ্যাকাডেমি’র অভিধান দ্রষ্টব্য)

আর ব্যবহারিক অর্থ- ধর্মান্ধ চরমপন্থী আমেরিকান খ্রিস্টান প্রোটেস্ট্যান্ট সম্প্রদায়ের বাইবেল সম্পর্কীয় মতবাদকে মৌলবাদ বলে এবং এ অর্থেই এটা ব্যাপকভাবে পরিচিত। আর এই ধর্মান্ধ চরমপন্থী আমেরিকান খ্রিস্টান প্রোটেস্ট্যান্ট সম্প্রদায়ই মৌলবাদী হিসেবে পরিচিত। এরাই সর্বপ্রথম মৌলবাদী বলে পরিচিতি লাভ করে, যারা বাইবেলের (বিকৃত ইনজীল শরীফ) প্রতিটি বিষয়ের যথার্থতায় এবং আক্ষরিক ব্যাখ্যায় যুক্তিহীনভাবে, যাচাই-বাচাই ব্যতিরেকে, অন্ধের ন্যায়, কুসংস্কারাচ্ছন্ন চরমপন্থীদের মতো বিশ্বাসী।

মৌলবাদী আন্দোলন আমেরিকান খ্রিস্টান প্রোটেস্ট্যান্টদের একটি ব্যাপক আন্দোলনের নাম। খ্রিস্টধর্মের অস্তিত্ব রক্ষার্থে মৌলবাদী আন্দোলন হয়েছিল। ১৯১২ ঈসায়ী সালে কিছু গোঁড়া খ্রিস্টবাদী লেখক বেনামে ১২টি ছোট ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ভলিউমে “The Fundamentals” (মৌলবাদ) নামে বই বের করে এবং এই বইয়ের নামকরণ থেকেই এই আন্দোলন “Fundamentalist Movement” বা “মৌলবাদী আন্দোলন” নামে আখ্যায়িত হয়। দেখুন-

http://en.wikipedia.org/wiki/Protestan

http://en.wikipedia.org/wiki/Christian_fundamentalism

 

উল্লেখ্য, মুসলমান পরিচয়ধারীদের মধ্যে মৌলবাদ বা মৌলবাদী দাবি করে থাকে ওহাবী, খারিজী, লা-মাযহাবী, সালাফী গংরা তথা তাবৎ বাতিল ফিরক্বার লোকেরা। অথচ কোনো মুসলমান কখনোই মৌলবাদী নয় এবং মৌলবাদীরা কখনোই মুসলমান নয়। কেননা শুধুমাত্র মুসলমানরাই আলোকিত ও সভ্য; মৌলবাদীরা নয়। সাদিক (সত্যপরায়ণ) নামায়ী ব্যক্তি মিথ্যা কথা বললে সে কখনো মৌলবাদী হয় না; হয় ফাসিক। মুসলমান কখনো মৌলবাদী নয়। মুসলমান নেক কাজ করলে মু’মিন, মুত্তাকী, ছিদ্দীক্ব ইত্যাদি অভিধায় ভূষিত হয়। আর পাপ কাজ করলে- ফাসিক হয়; কিন্তু মৌলবাদী হয় না। তবে মৌলবাদী দাবিদার জাহিলরা গোঁড়া ও অন্ধ দিলের বিধায় বুঝবে না।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে