শুধু দুনিয়াদারী দ্বীনদারী থেকে ফিরিয়ে রাখে কিন্তু দুনিয়াকে কাজে লাগিয়েই দ্বীনদারী…


দ্বীনদারী দুনিয়া থেকে খালি নয় তবে শুধু দুনিয়াদারী কিন্তু দ্বীনদারী থেকে ফিরিয়ে রাখে। দ্বীনদারী আর দুনিয়াদারী কে নৌকা এবং নদীর সাথে তুলনা করা হয়।নৌকা শুকনা জায়গায় চলতে পারে না,নদীতে ভেসে চলে। নদীতে নৌকা ডুবিয়ে দিলে সর্বনাশ।ঠিক একইভাবে মানুষ দুনিয়াকে কাজে লাগিয়েই দুনিয়া থেকে পরকালের পাথেয় সংগ্রহ করে নিবে,দুনিয়াতে মশগুল হয়ে নয়।
এই বিষয়টাই অনেকে বুঝতে ভুল করে অনেক বিষয় দুনিয়াবী মনে করে ছেড়ে দেয়।
আমার মায়ের কাছ থেকেই শুনেছি যে আমার এক মামা (মায়ের কাজিন) ৪০দিনের জন্য কিছুদিন পরপরই চিল্লায় যায়। সে স্ত্রী-ছেলেমেয়ে তাদের যে দেখাশোনা করার একটা বিষয় রয়েছে,বাজার করার বিষয় রয়েছে সেগুলো খেয়াল করে না! ভাবে খুব আল্লাহ পাক উনার ইবাদত হচ্ছে।এদিকে মাসের পর মাস ভাড়া জমছে!
হাক্কুল ইবাদ বলেও তো একটা বিষয় আছে!এই যে স্ত্রী সন্তানাদির কষ্ট হচ্ছে,তারা যে পেরেশানিতে আছে সেটা কি হাক্কুল ইবাদ নষ্ট না???
স্ত্রীর তো পর্দারও একটা বিষয় আছে,স্বামী মসজিদে ঢুকে বসে ইবাদত করবে আর স্ত্রী বাজার-ঘাট করার জন্য রাস্তায় দৌড়াবে এটা কি ধরনের ইবাদত??? একটা পুরুষের দায়িত্ব তার পরিবারের পূর্ণ ভরণ-পোষণ এর যোগান দেয়া এবং কোনোরকম পেরেশানি তে না ফেলা।
আরেকজনের কথা শুনেছি যে মেয়ের বিয়ে দেয়ার খবর নেই সে মসজিদে গিয়ে পড়ে থাকে।একটা মহিলাকে কতটুকু কষ্ট করতে হয় এজন্য? মা একা একা মেয়ে বিয়ে দেয় কারণ বাবার আসার ঠিক নেই,আপাতত ভাল পাত্র পাওয়া গিয়েছে বলে বিয়ে দেয়া!
অথচ হাদীস শরীফ হচ্ছে,”প্রত্যেক
েই রক্ষক, সে জিজ্ঞাসিত হবে তার রক্ষিত বিষয় সম্পর্কে”
তখন উত্তর দেয়া যাবে তো।এই যে সংসার করা সেটা আপাতদৃষ্টিতে দুনিয়াদারীইই যদি এর মাধ্যমে আল্লাহ পাক উনার সন্তুষ্টি পাওয়ার বাসনা না থাকে। যদি সে বাসনা থাকে তবে এই সংসার করাটাই কিন্তু দ্বীনদারী। সুবহানাল্লাহ।
আসলে প্রয়োজন সঠিক ইলিমের আর সহীহ বুঝের যা মহান নিয়ামত সবার কপালে জুটে না।যারা সে নিয়ামত চায়, বুঝতে চায় তারাই সেই মহান নিয়ামত পায়। তখন খাওয়া,ঘুম,সংসার,চাকরী-ব্যবসা সমস্ত কিছুর মধ্যেই ইবাদতের স্বাদ পাওয়া যায়,মহান আল্লাহ পাক উনাকে পাওয়া যায়।
মহান আল্লাহ পাক যেন আমাদের সকলকেই উনার সমস্ত নিয়ামতরাজী দানে ধন্য করেন এবং যে সমস্ত নিয়ামত পেয়েছি,পাচ্ছি তার জন্য যেন শুকরিয়া আদায় করতে পারি সে তৌফিকও দান করেন।।আমীন।।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে