সনির বার্ষিক ক্ষতি ৬শ’ ৪ কোটি মার্কিন ডলার!


১৯৪৯ সালের ৪ এপ্রিল ব্রাসেলসে এক সম্মেলনে ন্যাটো সামরিক জোটের জন্ম হয়। আগস্টেই এই সন্ত্রাসী জোটের ইসলামবিরোধী কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু করে। উত্তর আটলান্টিক চুক্তি সংস্থা সংক্ষেপে ন্যাটো নামে পরিচিত সন্ত্রাসী এ সামরিক জোট গঠিত হয় সারা বিশ্বব্যাপী মুসলিম নিধনকল্পে এবং মুসলিম বিশ্বে কাফির-মুশরিকদের সন্ত্রাসী কার্যকলাপ কায়িম রাখতে। নাউযুবিল্লাহ! সন্ত্রাসী ন্যাটোকে অর্থ দিয়ে শক্তিশালী করতে যে কোম্পানিগুলো কোটি কোটি ডলার সাহায্য দিত তার মধ্যে অন্যতম জাপানের কুখ্যাত সনি কোম্পানী। শুধুমাত্র ইসলাম ও মুসলমান বিদ্বেষী হয়ে তারা এত বড় অংকের টাকা সাহায্য করতো নিয়মিতভাবে যেন, সন্ত্রাসী ন্যাটো দুনিয়া থেকে সকল মুসলমানকে নিশ্চিহ্ন করে ইসলাম ধর্মকে মিটিয়ে দিতে পারে। নাউযুবিল্লাহ! কিন্তু তাদের সে ষড়যন্ত্র সফলতো হয়ইনি; বরং উল্টো খোদায়ী গযবরূপী চরম অর্থনৈতিক মন্দায় বর্তমানে নিশ্চিহ্ন হয়ে মিটে যাওয়ার দ্বারপ্রান্তে এসে পৌঁছেছে। গত ২০.০৫.১৪৩৩ হিজরী, ইয়াওমুল জুমুতি (শুক্রবার) দ্যা গ্লোবাল মেইল ও বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, জাপানের সনি কোম্পানিটির বার্ষিক ক্ষতির পরিমাণ ৬শ’ ৪০ কোটি মার্কিন ডলার। যা আগের বছরের দ্বিগুণ। উল্লেখ্য, প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, ক্ষতি সামাল দিতে কোম্পানিটি বিশ্ব জুড়ে বিভিন্ন দেশের প্রায় ১০ হাজার কর্মী ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে।
সনির প্রধান নির্বাহী কাজু হিরাই’র বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, অতিদ্রুত সময়ের মধ্যেই এ ছাঁটাই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে। এতে বিশ্ব জুড়ে সনিতে কর্মরতদের ৬ শতাংশ কর্মী ছাঁটাই হবে বলে নিশ্চিত করেছে।
সংবাদ ব্রিফিংয়ের আগে এক বিবৃতিতে সনি জানায়, ২০১৩-১৪ ব্যবসায়িক বছরে টেলিভিশন ব্যবসায়ের নির্দিষ্ট খরচ ৬০ শতাংশ ও পুরো ব্যবসা পরিচালনা খরচ ৩০ শতাংশ কমানোর চিন্তাও করছে তারা।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে