সন্ত্রাসী কোপাকোপি বন্ধ করতে হলে ইসলামী অনুশাসন মুতাবিক পরিবার সমাজ গড়ে তুলতে হবে


প্রতিদিন খবর আসে, রাজনীতি নিয়ে, আধিপাত্য নিয়ে, জমিজমা নিয়ে, হারাম প্রেম নিয়ে দেশের বিভিন্ন জায়গায় একে অপরকে কোপাকোপি করে আহত-নিহত করে যাচ্ছে। এছাড়া মৌলবাদী ওহাবী সন্ত্রাসবাদীরা তো সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার বিকৃত ও ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে কোপাকোপি করে। নাউযুবিল্লাহ! এরপর এসব কোপাকোপি নিয়ে প্রতিবাদ সভা, মিছিল, সমাবেশ, বক্তৃতা, বিবৃতি সমানে চলতেই থাকে। সবাই ছি ছি ধিক্কার দিতে থাকে। একে অপরকে দোষারোপ করে মামলা মোকাদ্দামা করতে থাকে। এমতাবস্থায় যারা দ্বীন ইসলাম উনার রাহবার, আমীর, দাঈ ইত্যাদি বলে নিজেদেরকে জাহির করে তারা নিতান্ত বোবা শয়তানের মতো চুপ হয়ে থাকে। নাউযুবিল্লাহ! অথচ, পরিবার হোক, সমাজ হোক বা দেশব্যাপী যেকোনো অসভ্যতা, অশ্লীলতা, কোপাকোপি, সন্ত্রাস ইত্যাদি বন্ধ করতে পারেন একমাত্র সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার অনুশাসন। ইসলামী অনুশাসন ও শিক্ষা ইত্যাদি যদি ব্যক্তি পর্যায়ে, পরিবার সমাজ পর্যায়ে সরকার পর্যায়ে বাস্তবায়ন করা যায়, নিয়মিত তালিম-তালকীনের মধ্যে জনগণকে রাখা যায়, পবিত্র মসজিদ উনার ইমাম-খতীবগণ যদি তাঁদের দায়িত্ব পালনে সঠিকভাবে কাজ করেন, তাহলে সর্বপ্রকার অশান্তি ও ফিতনা-ফাসাদ বন্ধ করা সরকারের জন্য অতিশয় সহজ হয়ে যাবে। অতএব, সরকারিভাবেই সর্বত্র ইসলামী অনুশাসন প্রতিষ্ঠিত করার জন্য উদ্যোগী হতে হবে এবং তা কার্যকর করার জন্য যথাযথ পদক্ষেপ নিতে হবে।
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে