সমস্ত ইবাদত থেকে ‘খইর’ তথা সর্বশ্রেষ্ঠ ইবাদত হচ্ছেন মহাপবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালন


মহাপবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালনের গুরুত্ব এত বেশি হওয়ার কারণ হচ্ছে যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন-
هُوَ خَيْرٌ مِّمَّا يَجْمَعُونَ
অর্থাৎ কায়িনাতবাসী, জিন-ইনসান, খাছ করে মানবজাতি যত ইবাদত করুক না কেন তাদের সমস্ত ইবাদত থেকে ‘খইর’ তথা সর্বশ্রেষ্ঠ ইবাদত হচ্ছেন মহাপবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালন। সুবহানাল্লাহ! (পবিত্র সূরা ইউনুস শরীফ : পবিত্র আয়াত শরীফ ৫৮)
উল্লেখ্য, মহাপবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ বলতে যা বুঝানো হয় তা হচ্ছে মহান আল্লাহ পাক উনার মহাসম্মানিত রসূল, সাইয়িদুল আম্বিয়া ওয়াল মুরসালীন, খাতামুন নাবিয়্যীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাপবিত্র নূরুল কুদ্রত মুবারক (ওজূদ পাক) এবং উনার মহাপবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ উপলক্ষে খুশি মুবারক প্রকাশ করা। আর এ লক্ষ্যে উনার সুমহান শানে ছলাত শরীফ পেশ তথা ছানা-ছিফত মুবারক করা, যথাযথ সম্মানে সালাম মুবারক পেশ করা এবং খিদমত বা গোলামীর উদ্দেশ্যে মাহফিলের আয়োজন করা ও তবারুকের ব্যবস্থা করা।
আরো উল্লেখ্য, খুশি মুবারক প্রকাশ করার ক্ষেত্রে আরবী ভাষায় একাধিক শব্দ মুবারক ব্যবহৃত হয়ে থাকে তন্মধ্যে মশহূর বা প্রসিদ্ধ একটি শব্দ মুবারক হচ্ছে عِيْدٌ ‘ঈদ’ যার বহুবচন হচ্ছে اَعْيَادٌ ‘আ’ইয়াদ’।
স্মরণীয় যে, কায়িনাতবাসীর জন্য খুশির দিন বা খুশির উপলক্ষ্য অনেক। তন্মধ্যে সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ তথা সর্বশ্রেষ্ঠ ঈদ হচ্ছেন মহান আল্লাহ পাক উনার মহাসম্মানিত রসূল নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাপবিত্র নূরুল কুদ্রত মুবারক (ওজূদ পাক) এবং উনার মহাপবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ উপলক্ষে খুশি মুবারক প্রকাশ করা। সুবহানাল্লাহ!

মহাপবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ অনন্তকালের জন্য পালন করতে হবে সে সম্পর্কে পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে-
إِنَّ اللهَ وَمَلَائِكَتَه يُصَلُّونَ عَلَى النَّبِيِّ ۚ يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا صَلُّوا عَلَيْهِ وَسَلِّمُوا تَسْلِيمًا

অর্থ: নিশ্চয়ই মহান আল্লাহ পাক তিনি এবং উনার সকল হযরত ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনারা নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুবারক শানে ছলাত শরীফ পেশ করেন অর্থাৎ ছানা-ছিফত মুবারক করেন। হে ঈমানদারগণ! উনার মুবারক শানে আপনারাও ছলাত শরীফ পেশ করুন এবং যথাযথ সম্মানে সালাম মুবারক পেশ করুন। (পবিত্র সূরা আহ্যাব শরীফ : পবিত্র আয়াত শরীফ ৫৬)
স্মরণীয় যে, মহান আল্লাহ পাক তিনি হচ্ছেন অনাদি অনন্ত তাই উনার পেশকৃত ছলাত শরীফ বা ছানা-ছিফত মুবারক উনার মহাসম্মানিত হাবীব নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুবারক শানে বা সম্মানার্থে তাও অনন্তকালের জন্যেই। সুবহানাল্লাহ!

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে