সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার দৃষ্টিতে কাফির-মুশরিক, বেদ্বীন-বদদ্বীনদের মুহব্বত করা, তা’যীম-তাকরীম করা ও অনুসরণ-অনুকরণ করা সম্পূর্ণ নাজায়িয, হারাম ও কুফরী।


মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “তোমরা মুনাফিক ও কাফিরদের অনুসরণ-অনুকরণ করো না।”
সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার দৃষ্টিতে কাফির-মুশরিক, বেদ্বীন-বদদ্বীনদের মুহব্বত করা, তা’যীম-তাকরীম করা ও অনুসরণ-অনুকরণ করা সম্পূর্ণরূপে নাজায়িয, হারাম ও কুফরী।
মনে রাখতে হবে যে, সমস্ত কাফির সম্প্রদায় যেরূপ মহান আল্লাহ পাক উনার, উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার শত্রু, তদ্রুপ তারা মুসলমান উনাদেরও শত্রু।
তাই প্রত্যেক মুসলমান উনাদের জন্য ফরয হচ্ছে- ইহুদী, মুশরিক, কাফির, বেদ্বীন-বদদ্বীনদের মুহব্বত, তা’যীম-তাকরীম ও অনুসরণ-অনুকরণ করা থেকে বিরত থাকা।

মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “তোমরা মুনাফিক ও কাফিরদের অনুসরণ-অনুকরণ করো না।’ আর পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “যে ব্যক্তি যে সম্প্রদায়ের সাথে মিল-মুহব্বত রাখবে বা যার অনুসরণ-অনুকরণ করবে, তার হাশর-নাশর তাদের সাথেই হবে।” এসব দ্বারাই প্রমাণিত হয় যে, সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার দৃষ্টিতে কাফির-মুশরিক, বেদ্বীন-বদদ্বীনদের মুহব্বত করা, তা’যীম-তাকরীম করা ও অনুসরণ-অনুকরণ করা সম্পূর্ণ নাজায়িয, হারাম ও কুফরী।

Views All Time
2
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে