সম্মানিত কুরআন শরীফ ও সম্মানিত হাদীছ শরীফ উনাদের পরিপূর্ণ নক্বশা মুবারক


যামানার ইমাম ও মুজতাহিদ, সাইয়্যিদে মুজাদ্দিদে আ’যম, আওলাদে রসূল সাইয়্যিদুনা ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি “সম্মানিত কুরআন শরীফ ও সম্মানিত হাদীছ শরীফ উনাদের পরিপূর্ণ নক্বশা মুবারক”

 

১) তিনি মাথা মুবারক উনার তালু মুবারক হতে পা মুবারক উনার তলা মুবারক পর্যন্ত সুক্ষাতিসুক্ষ সুন্নত মুবারক উনার অনুসরণ করেন। সুবহানাল্লাহ!

 

মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন-

 

قُلْ إِن كُنتُمْ تُحِبُّونَ اللّهَ فَاتَّبِعُونِي يُحْبِبْكُمُ اللّهُ وَيَغْفِرْ لَكُمْ ذُنُوبَكُمْ وَاللّهُ غَفُورٌ رَّحِيمٌ

“হে আমার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনি বলে দিন, যদি তোমরা মহান আল্লাহ পাক উনাকে মুহব্বত করে থাকো, তবে আমাকে অর্থাৎ নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে অনুসরণ করো, তাহলে মহান আল্লাহ পাক তিনি স্বয়ং তোমাদেরকে মুহব্বত করবেন এবং তোমাদের গুনাহ সমূহকে ক্ষমা করবেন। মহান আল্লাহ পাক তিনি তোমাদের প্রতি ক্ষমাশীল এবং দয়ালু হবেন।” (সম্মানিত সূরা আলে ইমরান শরীফ  : সম্মানিত আয়াত শরীফ -৩১)

 

 

২) তিনি কস্মিনকালেও হারাম ছবি তুলেন না ; এমনকি উনার পুরা যিন্দেগী মুবারকে একটি স্ট্যাম্প সাইজেরও ছবি নাই। সুবহানাল্লাহ! যা একমাত্র মহান আল্লাহ পাক উনার মনোনীত মাহবুব ব্যক্তিত্ব মুবারক উনাদের পক্ষেই সম্ভব।

 

 

সম্মানিত হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে,

كُلُّ مُصَوِّرٍ فِي النَّارِ

“প্রত্যেক প্রাণীর ছবি তুলনেওয়ালা বা তুলানেওয়ালা জাহান্নামী।” (মুসলিম শরীফ)

 

৩) তিনি কস্মিনকালেও বেপর্দা হন না; এমনকি পাঁচ বছরের উপরের কোন বাচ্চা মেয়েও উনার সামনে যেতে পারেনা। সুবহানাল্লাহ! এতো কঠিন পর্দা রক্ষা করা একমাত্র মনোনীত ব্যক্তিত্ব মুবারক উনাদের পক্ষেই সম্ভব।

 

সম্মানিত হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে,

 

لَعَنَ اللَّهُ النَّاظِرَ وَالْمَنْظُورَ إِلَيْهِ

 

“যে দেখে এবং দেখায় অর্থাৎ বেপর্দা হয়, উভয়ের প্রতি মহান আল্লাহ পাক উনার লা’নত। ” নাউযুবিল্লাহ! (বুখারী শরীফ, মুসলিম শরীফ)

 

৪) তিনি সম্মানিত দ্বীন ইসলাম ব্যতীত অন্য কোন কুফরী তর্জ-তরীক্বা, নিয়ম-নীতি যেমন:  কুফরী গণতন্ত্র, রাজতন্ত্র, সমাজতন্ত্র, মৌলবাদ সন্ত্রাসবাদ, হরতাল, লংমার্চ, কুশুপুত্তলিকা দাহ ইত্যাদি অনুসরণ করেন না। সুবহানাল্লাহ!

 

মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন,

 

إِنَّ الدِّينَ عِندَ اللَّهِ الْإِسْلَامُ ۗ

অর্থ: “নিশ্চয় মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট একমাত্র কবুলযোগ্য দ্বীন হচ্ছে, সম্মানিত দ্বীন ইসলাম। (সম্মানিত সূরা আলে ইমরান শরীফ : সম্মানিত আয়াত শরীফ -১৯)

 

মহান আল্লাহ পাক তিনি আরোও ইরশাদ মুবারক করেন-

 

وَمَن يَبْتَغِ غَيْرَ الإِسْلاَمِ دِينًا فَلَن يُقْبَلَ مِنْهُ وَهُوَ فِي الآخِرَةِ مِنَ الْخَاسِرِينَ.

অর্থ: “আর যারা সম্মানিত দ্বীন ইসলাম ব্যতীত অন্যকোন তর্জ-তরীক্বা অনুসরন করবে, তার থেকে সেটা কস্মিনকালেও কবুল করা হবেনা। আর সে আখিরাতে ক্ষতিগ্রস্থদের অর্থাৎ জাহান্নামীদের অন্তর্ভূক্ত হবে।” (সম্মানিত সূরা আলে  ইমরান শরীফ : সম্মানিত আয়াত শরীফ -৮৫)

 

মহান আল্লাহ পাক তিনি আরোও ইরশাদ মুবারক করেন-

 

هُوَ الَّذِي أَرْسَلَ رَسُولَهُ بِالْهُدَىٰ وَدِينِ الْحَقِّ لِيُظْهِرَهُ عَلَى الدِّينِ كُلِّهِ ۚ وَكَفَىٰ بِاللَّهِ شَهِيدًا ০ مُّحَمَّدٌ رَّسُولُ اللَّهِ ۚ

 

“তিনি সেই মহান আল্লাহ পাক যিনি  একমাত্র সত্যদ্বীন এবং হিদায়েত সহকারে উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে পাঠিয়েছেন সকল দ্বীনের উপর প্রাধান্য দিয়ে (পূর্ববর্তী ওহী দ্বারা নাযিলকৃত সমস্ত দ্বীন এবং পূর্বের, পরের মানব রচিত সমস্ত মতবাদ বাতিল করে দিয়ে) । আর এ বিষয়ে মহান আল্লাহ পাক উনার সাক্ষীই যথেষ্ট। আর রসূল হচ্ছেন, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি। সুবহানাল্লাহ!!! ( সম্মানিত সূরা ফাতহ শরীফ : সম্মানিত আয়াত শরীফ ২৮-২৯)

 

মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদের সবাইকে যামানার ইমাম ও মুজতাহিদ, সাইয়্যিদে মুজাদ্দিদে আ’যম, আওলাদে রসূল সাইয়্যিদুনা ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার হাক্বীক্বী শান-মান মুবারক, মর্যদা-মর্তবা মুবারক, ফাযায়িল-ফযীলত মুবারক, বুযূর্গী-সম্মান মুবারক, খুছুছিয়ত-বৈশিষ্ট মুবারক উপলব্ধি করার তৌফিক দান করুন। আমীন

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে