সম্মানিত মীলাদ শরীফ পাঠ করা মহান আল্লাহ পাক উনার নির্দেশ মুবারক


সম্মানিত মীলাদ শরীফ ও সম্মানিত ক্বিয়াম শরীফ পাঠ করা মহান আল্লাহ পাক উনার নির্দেশ মুবারক এবং হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়া’লা আনহুম উনারাও সম্মানিত মীলাদ শরীফ ও সম্মানিত ক্বিয়াম শরীফ পাঠ করেছেন। সুবহানাল্লাহ!!! 

 

সম্মানিত মীলাদ শরীফ ও সম্মানিত ক্বিয়াম শরীফ পাঠ করার মূল উদ্দেশ্য হলো- সংক্ষেপে মহান আল্লাহ পাক উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়্যীন হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত বরকতময় বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ উপলক্ষে খুশি প্রকাশ করা এবং উনার সম্মানিত ছানা-ছিফত মুবারক করা এবং উনার প্রতি সম্মানিত ছলাত-সালাম মুবারক পাঠ করা।

 

* সম্মানিত মীলাদ শরীফ ও সম্মানিত ক্বিয়াম শরীফ পাঠ করার তরতীব মুবারক-

 

প্রথমতঃ মহান আল্লাহ পাক উনার কালাম সম্মানিত কালামুল্লাহ শরীফ হতে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত ছানা-ছিফত মুবারক সম্বলিত সম্মানিত আয়াত শরীফ তিলাওয়াত করা

 

দ্বিতীয়তঃ নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি সম্মানিত ছলাত মুবারক তথা সম্মানিত দুরূদ শরীফ পাঠ করা

 

তৃতীয়তঃ নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার এবং উনার সংশ্লিষ্ট উনাদের সম্মানিত ছানা-ছিফত মুবারক সম্বলিত না’ত শরীফ বা ক্বাছিদা শরীফ পাঠ করা। যা সম্মানিত সুন্নত মুবারক উনার অন্তর্ভুক্ত।

 

চতুর্থতঃ নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত বরকতময় বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ উনার ঘটনাসমূহ সম্বলিত “সম্মানিত তাওয়াল্লুদ শরীফ” পাঠ করা

 

পঞ্চমত: সম্মানিত ক্বিয়াম শরীফ পাঠঠ করা তথা নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানার্থে উনার প্রতি পরিপূর্ণ আদব সহকারে দাঁড়িয়ে সালাম মু্বারক পেশ করা।

 

উপরোক্ত প্রতিটি তরতীব মুবারক সম্মানিত কালামুল্লাহ শরীফ ও সম্মানিত সুন্নাহ শরীফ উনাদের অকাট্য দলীল আদিল্লাহ দ্বারা ছাবিত যা পালন করা বেশুমার ফযীলত লাভের কারণ। সুবহানাল্লাহ!!!

 

মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন-

 

إِنَّ اللَّهَ وَمَلَائِكَتَهُ يُصَلُّونَ عَلَى النَّبِيِّ يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا صَلُّوا عَلَيْهِ وَسَلِّمُوا تَسْلِيمًا.

 

অর্থ: “নিশ্চয় মহান আল্লাহ পাক তিনি এবং সমস্ত ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনারা নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি সম্মানিত ছলাত মুবারক তথা পবিত্র মীলাদ শরীফ পাঠ করেন। হে ঈমানদারগণ! তোমরাও নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি ছলাত মুবারক তথা সম্মানিত মীলাদ শরীফ পাঠ করো এবং সালাম মুবারক প্রদান করার মতো সালাম মুবারক প্রদান করো অর্থাৎ পরিপূর্ণ আদব সহকারে দাঁড়িয়ে সালাম মুবারক তথা সম্মানিত ক্বিয়াম শরীফ পাঠ করো। (সম্মানিত সূরা আহযাব শরীফ : সম্মানিত আয়াত শরীফ – ৫৬)

 

এই সম্মানিত আয়াত শরীফ উনার মধ্যে মহান আল্লাহ পাক তিনি শুধুমাত্র ঈমানদারগণ অর্থাৎ যাঁরা মহান আল্লাহ পাক উনার এবং উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের প্রতি ঈমান এনেছেন, উনাদেরকে সম্মানিত মীলাদ শরীফ করতে এবং সম্মানিত ক্বিয়াম শরীফ পাঠ করতে বলেছেন। সুবহানাল্লাহ!!! কোন কাফির-মুশরিক, বেদ্বীন-বদ্বীন, কাট্টা মুনাফিক বাতিল গোষ্ঠীদেরকে বলা হয়নি। নাউযুবিল্লাহ!!!

 

সুতরাং যাঁরা ঈমানদার, উনারাই সম্মানিত মীলাদ শরীফ ও সম্মানিত ক্বিয়াম শরীফ পাঠ করবেন। যেরূপ পাঠ করেছেন হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনারা। এ সম্পর্কে অসংখ্য অগণিত ছহীহ বর্ণনা মুবারক সম্মানিত হাদীছ শরীফ, সম্মানিত সীরাত শরীফ, সম্মানিত তাফসীর শরীফসহ ইতিহাসের কিতাবগুলোতে উল্লেখ রয়েছে। সুবহানাল্লাহ!!! এ প্রসঙ্গে সম্মানিত হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছেন-

 

عَنْ حضرت اَبِى الدَّرْدَاءِ رَضِىَ اللهُ تَعَالٰى عَنْهُ اَنَّه مَرَّ مَعَ النَّبِىِّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ اِلٰى بَيْتِ عَامِرِ الاَنْصَارِىِّ وَكَانَ يُعَلِّمُ وَقَائِعَ وِلادَتِه صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ لاَبْنَائِه وَعَشِيْرَتِه وَيَقُوْلُ هٰذَا الْيَوْمَ هٰذَا الْيَوْمَ فَقَالَ عَلَيْهِ الصَّلٰوةُ وَالسَّلامُ اِنَّ اللهَ فَتَحَ لَكَ اَبْوَابَ الرَّحْمَةِ وَالْمَلائِكَةُ كُلُّهُمْ يَسْتَغْفِرُوْنَ لَكَ مَنْ فَعَلَ فِعْلَكَ نَجٰى نَجٰتَكَ.

 

অর্থ: “হযরত আবু দারদা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বর্ণনা করেন- একদা আমি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে হযরত আমির আনছারী রদ্বিয়াল্লাহু তায়া’লা আনহু উনার বাড়িতে গেলাম। সেখানে দেখলাম তিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত বরকতময় বিলাদত শরীফ উপলক্ষে খুশি প্রকাশ করে নিজ সন্তানাদি এবং আত্মীয়-স্বজন, জ্ঞাতি-গোষ্ঠী, পাড়া-প্রতিবেশীদেরকে সমবেত করে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত বরকতময় বিলাদত শরীফ উনার ঘটনাসমূহ শুনাচ্ছিলেন। অতঃপর নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “নিশ্চয়ই মহান আল্লাহ পাক তিনি আপনাদের জন্য সমস্ত রহমত মুবারক উনার দ্বার উন্মুক্ত করেছেন এবং সমস্ত ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনারা আপনাদের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করছেন। ক্বিয়ামত পর্যন্ত যাঁরা আপনাদের মতো এরূপ করবেন, তারাও অনুরূপভাবে নাজাত লাভ করবে।” সুবহানাল্লাহ!!!  (আন নি’মাতুল কুবরা আলাল আলাম ফী মাওলিদি সাইয়্যিদি উলদি আদম, সবহুল হুদা ফি মাওলিদিল মুস্তফা ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, কিতাবুল তানবীর ফি মাওলুদুল বাশির ওয়ান নাজির, হাক্বীকতে মুহম্মদী মীলাদে আহমদী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)

 

মহাসম্মানিত হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে আরো ইরশাদ মুবারক হয়েছেন-

 

عن ابن عباس رضى الله تعالى عنهما انه كان يحدث ذات يوم فى بيته وقائع ولادته صلى الله عليه وسلم لقوم فيستبشرون ويحمدون الله ويصلون عليه صلى الله عليه وسلم فاذا جاء النبى صلى الله عليه وسلم قال حلت لكم شفاعتى.

 

অর্থ: “হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার থেকে বর্ণিত আছে যে, একদা তিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত বরকতময় বিলাদত শরীফ উপলক্ষে খুশি প্রকাশ করে নিজ গৃহে উনার ক্বওম উনাদেরকে সমবেত করে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত বরকতময় বিলাদত শরীফ উনার ঘটনাসমূহ শুনাচ্ছিলেন। এতে শ্রবণকারীগণ আনন্দিত হয়েছিলেন ও খুশি প্রকাশ করছিলেন এবং মহান আল্লাহ পাক উনার প্রশংসা মুবারক করছিলেন ও নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি ছলাত মুবারক তথা সম্মানিত দুরূদ শরীফ পাঠ করছিলেন। ঠিক এমন সময় নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উক্ত মজলিসে সম্মানিত তাশরীফ মুবারক আনলেন এবং তিনি ইরশাদ মুবারক করলেন- “আপনাদের জন্য আমার শাফায়াত ওয়াজিব হয়ে গেলো।” সুবহানাল্লাহ!  (আন নি’মাতুল কুবরা আলাল আলাম ফী মাওলিদি সাইয়্যিদি উলদি আদম, সবহুল হুদা ফি মাওলিদিল মুস্তফা ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, কিতাবুল তানবীর ফি মাওলুদুল বাশির ওয়ান নাজির, হাক্বীকতে মুহম্মদী মীলাদে আহমদী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)

 

 

মূলত মহান আল্লাহ পাক উনার নির্দেশ মুবারক উনার কারণেই সর্বপ্রথম হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনারা নূরে মুজাসাসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত শান মুবারক-এ সম্মানিত মীলাদ শরীফ উনার মজলিস এককভাবে, সম্মিলিতভাবে, ব্যাপকভাবে কায়িম করেন। প্রতিযুগের প্রত্যেক ঈমানদার বান্দা-বান্দী, উম্মতগণের জন্য ফরয-ওয়াজিব হচ্ছে- হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনাদের পদাঙ্ক পূর্ণাঙ্গরূপে অনুসরণ-অনুকরণ করা। কেননা, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন-

 

اصحابى كلهم كالنجوم بايهم اقتديتم اهتديتم

 

অর্থ: “আমার প্রত্যেক ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুমই আকাশের তারকাসদৃশ। উনাদের যে কাউকে যেকোনো বিষয়ে যে ব্যক্তিই অনুসরণ-অনুকরণ করবে সেই হিদায়েত লাভ করবে।” সুবহানাল্লাহ! (দলীল : রযীন, মিশকাত, মিরকাত, আশয়াতুল লুময়াত, আত তা’লীকুছ ছবীহ, শরহুত তীবী, মুযাহিরে হক্ব)

 

সম্মানিত কালামুল্লাহ শরীফ, সম্মানিত সুন্নাহ শরীফ উনাদের বর্ণনা মুবারক উনাদের আলোকে বর্তমান যামানার মহান মুজাদ্দিদ, যামানার ইমাম ও মুজতাহিদ, সাইয়্যিদে মুজাদ্দিদে আ’যম, আওলাদে রসূল সাইয়্যিদুনা ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি সহজ-সরল সুন্নতী তরতীব মুবারকে সম্মানিত মীলাদ শরীফ মাহফিল উনাকে তাজদীদ মুবারক করতঃ সারা দুনিয়াতে জারি করে দিচ্ছেন। উনার সম্মানিত ক্বওল শরীফ হচ্ছেন- “প্রত্যেক ঈমানদার, দ্বীনদার মুসলমান উনাদের জন্য দায়িত্ব-কর্তব্য নিজ উদ্যোগে, ঘরোয়াভাবে কিংবা সম্মিলিতভাবে সম্মানিত মীলাদ শরীফ উনার মজলিস মাহফিল কায়িম করা অর্থাৎ অন্তত একবার হলেও প্রতিদিন সম্মানিত মীলাদ শরীফ মাহফিল করা, যা রহমত-বরকত-সাকীনা-ফযীলত তথা রিযামন্দী-সন্তুষ্টি মুবারক হাছিল করার অন্যতম প্রধান উসীলা।” সুবহানাল্লাহ!!!

 

মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদের সবাইকে সম্মানিত মীলাদ শরীফ ও সম্মানিত ক্বিয়াম শরীফ পাঠ করার তৌফিক দান করুন। আমীন

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে