সম্মানিত মুহররমুল হারাম মাস এবং পবিত্র আশূরা শরীফ…পর্ব -৪


সাইয়্যিদুশ শুহাদা হযরত ইমাম হুসাইন আলাইহিস সালাম তিনি চতুর্থ হিজরী শরীফ উনার শা’বান মাসের পাঁচ তারিখ পবিত্র মদীনা শরীফে পবিত্র বিলাদত শরীফ লাভ করেন। পবিত্র বিলাদত শরীফ উনার পর নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উনার কান মুবারকে আযান মুবারক দিয়ে দোয়া মুবারক করেন এবং তাহনিক করেন। অতঃপর নাম মুবারক রাখেন এবং সাতদিন পর আক্বীকা করেন।

পবিত্র হাদীছ শরীফে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, হযরত ইমাম হাসান আলাইহিস সালাম ও হযরত ইমাম হুসাইন আলাইহিস সালাম উনারা সম্মানিত বেহেশতী যুবকগণ উনাদের সাইয়্যিদ হবেন।

হযরত আবূ হুরায়রা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বর্ণনা করেন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি একদা এমন অবস্থায় বাইরে তাশরীফ আনলেন যে, উনার এক কাঁধ মুবারক উনার উপর হযরত ইমাম হাসান আলাইহিস সালাম এবং অন্য কাঁধ মুবারক উনার উপর হযরত ইমাম হুসাইন আলাইহিস সালাম উনাদেরকে বসিয়ে ছিলেন। এভাবে আমাদের সামনে মুবারক তাশরীফ এনে ইরশাদ মুবারক করলেন, ‘যে এ দু’জন উনাদেরকে মুহব্বত করলো, সে আমাকে মুহব্বত করলো। আর যে উনাদের সাথে দুশমনি করলো, সে আমার সাথে দুশমনি করলো।’

“একদিন নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম হাসান আলাইহিস সালাম এবং সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম হুসাইন আলাইহিস সালাম উনাদের হাত মুবারক ধরলেন এবং ইরশাদ মুবারক করলেন, “যে ব্যক্তি আমাকে মুহব্বত করবে, এ দু’জনকে মুহব্বত করবে এবং উনাদের সম্মানিত আব্বাজান ও সম্মানিত আম্মাজান উনাদেরকে মুহব্বত করবে সে ব্যক্তি ক্বিয়ামতের দিন আমার সাথে একই স্থানে অবস্থান করবে।” (মুসনদে আহমদ- ২/২৬, শহীদ ইবনে শহীদ- ৪১)

বিশিষ্ট ছাহাবী হযরত আবু সাঈদ খুদরী রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বলেন, একদিন নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ, উম্মু আবীহা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনার কাছে তাশরীফ আনলেন। অতঃপর ইরশাদ মুবারক করলেন-“আমি ও আপনি এবং এই ব্যক্তি যিনি মুবারক ঘুমে নিমগ্ন তথা সাইয়্যিদুনা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম আর উনারা তথা সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম হাসান আলাইহিস সালাম, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম হুসাইন আলাইহিস সালাম উনারা ক্বিয়ামতের দিন একই সাথে থাকবো। (মুস্তাদরাকে হাকীম- ৩/১৬৫)

হযরত ইয়া’লা ইবনে মুররাহ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বলেন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি বলেন, “হযরত হুসাইন আলাইহিস সালাম তিনি আমার থেকে আর আমি হযরত হুসাইন আলাইহিস সালাম উনার থেকে। যে ব্যক্তি হযরত হুসাইন আলাইহিস সালাম উনাকে মুহব্বত করবে, মহান আল্লাহ পাক উনাকে মুহব্বত করবেন। হযরত ইমাম হুসাইন আলাইহিস সালাম উনার বংশ পৃথিবীর বংশসমূহের মধ্যে একটি শ্রেষ্ঠ বংশ।” সুবহানাল্লাহ! (তিরমিযী শরীফ, মিশকাত শরীফ)

চলবে ……

এই পর্বে হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার লখতে জিগার সাইয়্যিদু শাবাবি আহলিল জান্নাহ সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম হুসাইন আলাইহিস সালাম উনার শান-মান কিছুটা আলোচনা করার কোশেশ করেছি, সামনের পর্বে সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম হুসাইন আলাইহিস সালাম উনার শান-মান উপলব্ধির লক্ষ্যে কিছু মুবারক ঘটনা আলোচনা করার কোশেশ করব। ইনশাআল্লাহ্‌

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে