সম্মানিত যাকাত অমুসলিমদের জন্য নয়


কারো কি আছে যমীন থেকে আসমান পর্যন্ত স্বর্ণ???
কেউ কি পারবে যমীন থেকে আসমান পর্যন্ত স্বর্ণ মহান আল্লাহ পাক উনাকে দিতে তার একটা কুফরীর বদলাস্বরূপ???
কেউইই পারবে না।
তারপরো বলা হচ্ছে, কেউ যদি তার একটা কুফরীর বদলাস্বরূপ মহান আল্লাহ পাক উনাকে যমীন থেকে আসমান পর্যন্ত স্বর্ণও দেয় তবুও তা তার থেকে গ্রহণ করা হবে না,তার কুফরীকে মিটানো যাবে না!
একটা কুফরী করলেই ব্যক্তি তওবা না করা পর্যন্ত কাফির হয়ে যাবে,মুসলিম হিসেবে থাকতে পারবে না।
অথচ মানুষ অবলীলায় কত্তো কুফরী করছে! নাঊযুবিল্লাহ!
বিষয় যতই ছোট হোক না কেনো,সূক্ষ্ম হোক না কেন..যে বিষয় যেভাবে বলা হয়েছে সেভাবেই বিশ্বাস করার নাম ঈমান,ব্যতিক্রম করাটাই কুফরী।
তা, একটা বিষয়ই অস্বীকার করা হোক বা তার অধিক হোক।
কাদিয়ানীরা নামায পড়লেও, রোযা রাখলেও তাই মুসলিম না। একইভাবে শিয়া,রাফেযী, খারেযী , ওহাবী ইত্যাদি হাক্বীকতে মুসলিম না।
তাই এদেরকে, এদের দ্বারা পরিচালিত মাদ্রাসা,মসজিদে দান,সদকা,উশর,যাকাত,ফিৎরা দিলে কবুল হবে না।
অমুসলিমদের যাকাত দেয়ার নিয়ম নেই।
এই বিষয় অস্বীকারকারীও মুসলিম নয়।
মহান আল্লাহ পাক যেন আমাদের সকলকে ইচ্ছা,অনিচ্ছায় সমস্ত কুফরী থেকে হিফাযত করেন এবং যোগ্য জায়গায় যার যার যাকাত,ফিৎরা ইত্যাদি পৌঁছানোর তৌফিক দান করেন।

Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে