সময়তো ফুরিয়ে যাচ্ছে,,,,, আমরা কামাই করে নিচ্ছি না কেনো?!?


রোযা মানে শুধুই না খেয়ে থাকা না! এমন অনেক রোযাদার আছে যারা শুধু পানাহার পরিত্যাগের কষ্টই করে, আর কিছু রাত্রি জাগরণকারী রয়েছে যাদের রাত্রি জেগে ইবাদত বন্দেগী করাও বৃথা।
কেননা তাদের সে বন্দেগী গাইরুল্লাহ এর জন্য,মহান আল্লাহ পাক উনার জন্য না। যেকোনো ইবাদত কবুল হওয়ার মূল শর্ত হচ্ছে
# ইখলাছের সাথে অর্থাৎ পূর্ণ আনুগত্যতার সাথে মহান আল্লাহ পাক উনার সন্তুষ্টির জন্য ইবাদত করা।
রোযাদারের যেমন অনেক ফযীলত রয়েছে, তেমনি ফযীলত হাছিলের জন্য কিছু যোগ্যতারও প্রয়োজন রয়ে গিয়েছে।
সারাদিন টিভি চ্যানেলের দিকে তাকিয়ে থেকে,গান শুনে টাইম পাস করে,খেলাধূলা দেখে না খেয়ে থাকার নাম রোযা না। এগুলো রমযান মাসের ভাবগাম্ভীর্য বজায় রাখে না। রোযা রাখার মানে এই না, কিছু হারাম কাজ করে দিন পার করা! রোযা মানে সর্বপ্রকার হারাম ও মন্দ কাজ অর্থাৎ মহান আল্লাহ পাক উনার অপছন্দনীয় কাজ থেকে বিরত থাকা।
কাজেই মাস তো শেষ হয়ে যাচ্ছে…এক্টু কষ্ট করে উপরোক্ত কাজগুলো থেকে কি বিরত থাকা যায় না??? এই মাসের সম্মানার্থে এক্টু কি পারি না এই কাজগুলো বাদ রাখতে???
সময় হাতে থাকলে আড্ডাবাজি বাদ রাখুন,অনেকের মাঝে থাকলেও চুপ থাকারই চেষ্টা করুন, তাসবীহ পাঠের সওয়াব পাবেন।
দিন বেশি বড় লাগলে,কিছু করতে মন না চাইলে এক্টু ঘুমিয়েই নিন নাহয়,রোযাদারের ঘুমও ইবাদত। সুবহানাল্লাহ
আপনার জন্য মহান আল্লাহ পাক এতো নিয়ামত রাখলেন আর আপনি কিনা অবহেলা করছেন??? আপনার পূর্ব পুরুষ, অনেক আত্মীয়স্বজন দুনিয়ার বাইরে,ফিরে আসতে কিন্তু পারেনি! আপনি,আমিও পারবো না। সুতরাং কামাই করেই নিচ্ছি না কেনো সকলে??? আল্লাহ্ পাক উনার জন্য আমল করা হলে যেকোন ছোট আমল হলেও বদলা পাওয়া যাবে,ক্ষতি হবে না।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে