সরকার কর্তৃক নির্ধারিত স্থানে নয়, বরং নিজ বাড়িতেই মুসলমানদের কুরবানী করতে দিতে হবে


সেই শুরু থেকেই বাংলাদেশের মুসলমানরা নিজ বাড়িতে কুরবানী করে থাকে। নিজ ও পরিবারের সব সদস্য মিলে গোশত কাটে, কুরবানী ঈদে এটাই যেন সবচেয়ে বড় আনন্দের বিষয়।
কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য, বাংলাদেশ প্রশাসন বলছে- নিজ বাড়িতে আর কুরবানী করা যাবে না। পশুকে নির্দ্দিষ্ট স্থানে দিয়ে আসতে হবে। সেখানে সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগেই গরু জবাই ও গোশত কাটা হবে। নাঊযুবিল্লাহ!
অথচ নিজ পশু নিজ হস্তে জবাই করা এবং গোশত কাটা পবিত্র সুন্নত উনার অন্তর্ভুক্ত। সেখানে সরকার এই নতুন নিয়ম করলে মুসলমানরা একদিক থেকে যেমন সুন্নত উনার থেকে মাহরূম হবে, অন্যদিকে চরম ধরনের বিশৃঙ্খলতা দেখা দিবে, যা মুসলমানদের এত বড় ইবাদত পালনে মারাত্মক ব্যাঘাত সৃষ্টি করবে।
এক্ষেত্রে সরকারের কখনোই উচিত হবে না- এ ধরনের উদ্ভট সিদ্ধান্ত নেয়া। বরং সরকারের দায়িত্ব হবে মুসলমানরদের কুরবানী করতে সব ধরনের সহায়তা প্রদান করা, এবং কত সহজে মুসলমানরা কুরবানী করতে পারে সে ব্যাপারে সাহায্য করা।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে