“সর্বোচ্চ নেক আমল হচ্ছেন পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উপলক্ষে খুশি প্রকাশ করা”


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “নিশ্চয়ই যাঁরা ঈমান এনেছেন এবং আমলে ছলেহ অর্থাৎ নেক আমল করেছেন উনাদের জন্য সম্মানিত জান্নাতুল ফিরদাউস উনার মধ্যে মেহমানদারীর ব্যবস্থা রয়েছে।” (পবিত্র সূরা কাহফ শরীফ : পবিত্র আয়াত শরীফ ১০৭)
মূলত, যারা মহান আল্লাহ পাক উনার সাথে সাথে আখিরী রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি ঈমান এনেছেন উনারাই মু’মিন বা ঈমানদার। আর সর্বোচ্চ নেক আমল বা আমলে ছলেহ হচ্ছে আখিরী রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্রতম বিলাদত শরীফ উপলক্ষে খুশি প্রকাশ করা তথা পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উনাকে পালন করা। সুবহানাল্লাহ!
যেমন এ প্রসঙ্গে মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “মহান আল্লাহ পাক তিনি স্বীয় ফদ্বল ও রহমত স্বরূপ অর্থাৎ অপার দয়া ও অনুগ্রহ হিসেবে উনার প্রিয়তম রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে পাঠিয়েছেন, সেজন্য তারা (বান্দা-বান্দী, উম্মত) যেন খুশি প্রকাশ করে। এই খুশি প্রকাশের আমলটি তাদের সমস্ত নেক আমল অপেক্ষা উত্তম বা শ্রেষ্ঠ।” (পবিত্র সূরা ইউনুস শরীফ : পবিত্র আয়াত শরীফ ৫৮)
উল্লেখ্য, কুফরী সমস্ত নেক আমলসমূহকে নষ্ট করে ফেলে। কিন্তু সম্মানিত সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ এমনই নেক আমল যা কোনো কুফরীও মিটাতে পারে না। সুবহানাল্লাহ!
আর এর উৎকৃষ্ট উদাহরণ হচ্ছে আবু লাহাব; যে খুশি প্রকাশ করার কারণে জাহান্নামী হয়েও সপ্তাহে একদিন জাহান্নামের শাস্তি থেকে রোখছত পাচ্ছে। এখন যদি কোনো মুসলমান উনার গুনাহখাতা ক্ষমা করতে চায়- তবে উনার দায়িত্ব-কর্তব্য হবে, পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালন করা। কেননা, মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “যে ব্যক্তি তওবা করলো এবং ঈমান আনলো এবং আমলে ছলেহ করলো মহান আল্লাহ পাক তিনি তাদের গুনাহ বা পাপগুলোকে নেকীর দ্বারা পরিবর্তন করে দিবেন।” সুবহানাল্লাহ!
কাজেই প্রত্যেক মুসলমান উনাদের উচিত হবে- সর্বোচ্চ নেক আমল বা আমলে ছলেহ তথা সম্মানিত সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উনাকে পালন করা, খুশি প্রকাশ করা। মহান আল্লাহ পাক তিনি এবং উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ, হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা আমাদের সকলকে সেই তাওফীক দান করুন। আমীন!

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে