সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল ‘আশির মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত আওলাদ আলাইহিমুস সালাম এবং মহাসম্মানিতা আওলাদ আলাইহিন্নাস সালাম


কিতাবে বর্ণিত রয়েছে,
أما أبو الحسن علي النقي فله من الأبناء ستة
অর্থ: “ইমামুল ‘আশির মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, আবুল হাসান সাইয়্যিদুনা হযরত আলী নক্বী আলাইহিস সলাম উনার মহাসম্মানিত আবনা’ (ছেলে) আলাইহিমুস সালাম উনারা ছিলেন মোট ৬ জন।” সুবহানাল্লাহ! (আশ শাজরাতুল মুবারকহ ১/২২)
উনারা হচ্ছেন-
১. ইমামুল হাদী ‘আশার মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, আবূ মুহম্মদ সাইয়্যিদুনা হযরত হাসান আসকারী আলাইহিস সালাম।
২ সাইয়্যিদুনা হযরত মুহম্মদ আলাইহিস সালাম। তিনি ইমামুল ‘আশির মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত প্রথম (বড়) আওলাদ। সুবহানাল্লাহ!
৩. সাইয়্যিদুনা হযরত হুসাইন আলাইহিস সালাম। তিনি উনার মহাসম্মানিত পিতা উনার পূর্বে সম্মানিত বিছালী শান মুবারক প্রকাশ করেন। সুবহানাল্লাহ!
৪. সাইয়্যিদুনা হযরত মূছা আলাইহিস সালাম।
৫. আবূ আব্দুল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত জা’ফর আলাইহিস সালাম। এবং
৬. সাইয়্যিদুনা হযরত আলী আলাইহিস সালাম। সুবহানাল্লাহ!
কিতাবে আরো বর্ণিত রয়েছে,
واتفقوا على أن المعقب من أولاده ابنان سيدنا حضرت الحسن العسكري عليه السلام الإمام وسيدنا حضرت جعفر عليه السلام
অর্থ: “সীরতবিশারদগণ উনাদের সকলের ঐকমত্যে সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল ‘আশির মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত এবং মহাপবিত্র বরকতময় নছব মুবারক (বংশ মুবারক) উনার দু’জন মহাসম্মানিত আওলাদ আলাইহিমাস সালাম উনাদের মাধ্যমে জারী রয়েছেন। সুবহানাল্লাহ! উনারা হচ্ছেন-
১. ইমামুল হাদী ‘আশার মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি।
২. আবূ আব্দুল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত জা’ফর আলাইহিস সালাম। সুবহানাল্লাহ! (আশ শাজরাতুল মুবারকহ ১/২২)
ইমামুল হাদী ‘আশার মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মাধ্যমেই মহাসম্মানিত এবং মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের সম্মানিত মূল নিয়ামত মুবারক এবং সম্মানিত কুরবত মুবারক বংশানুক্রমে পর্যায়ক্রমে চলতে থাকেন। অর্থাৎ উনার মাধ্যমেই মহাসম্মানিত এবং মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মহাসম্মানিত এবং মহাপবিত্র সিলসিলা মুবারক এযাবৎকাল পর্যন্ত জারী রয়েছেন এবং ক্বিয়ামত পর্যন্ত জারী থাকবেন। সুবহানাল্লাহ!
আর ইমামুল ‘আশির মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত বানাত (মেয়ে) আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের সম্পর্কে কিতাবে বর্ণিত রয়েছে,
وله من البنات ثلاثة سيدتنا حضرت عائشة عليها السلام وسيدتنا حضرت فاطمة عليها السلام وسيدتنا حضرت بريهة عليها السلام وزوج سيدتنا حضرت بريهة عليها السلام سيدنا حضرت محمد بن موسى ابن محمد التقي عليهم السلام.
অর্থ: “ইমামুল ‘আশির মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত বানাত (মেয়ে) আলাইহিন্নাস সালাম উনারা মোট ৩ জন। উনারা হচ্ছেন-
১. সাইয়্যিদাতুনা হযরত ‘আয়িশাহ আলাইহাস সালাম,
২. সাইয়্যিদাতুনা হযরত ফাতিমাহ আলাইহাস সালাম এবং
৩. সাইয়্যিদাতুনা হযরত বারীহাহ আলইহাস সালাম। সুবহানাল্লাহ!
সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল ‘আশির মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উনার মহাসম্মানিত বানাত সাইয়্যিদাতুনা হযরত বারীহাহ আলাইহাস সালাম উনাকে সাইয়্যিদুনা হযরত মুহম্মদ ইবনে মূসা ইবনে মুহম্মদ তক্বী আলাইহিমুস সালাম উনার নিকট সম্মানিত নিসবতে আযীম শরীফ দেন।” সুবহানাল্লাহ! (আশ শাজরাতুল মুবারকহ ১/২২)

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে