সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উনার তথা পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার গুরুত্ব, সম্মান মর্যাদা-মর্তবা উনার বিষয়টি প্রত্যেক শিক্ষাবোর্ডের বই-পুস্তকে তথা সিলেবাসে অন্তর্ভুক্ত করা হোক


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “হে আমার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনি উম্মাহকে বলে দিন, মহান আল্লাহ পাক তিনি রহমত ও ফযল করম ও দয়াদান ইহছান হিসেবে উনার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে হাদিয়া মুবারক করেছেন সেজন্য তারা যেন ঈদ উদযাপন তথা খুশি প্রকাশ করে। এই খুশি প্রকাশ করাটা সেসব কিছু থেকে উত্তম যা তারা (দুনিয়া আখিরাতের জন্য) সঞ্চয় করে থাকে।” সুবহনাল্লাহ! (পবিত্র সূরা ইউনুস শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ৫৮)

যেহেতু মহান আল্লাহ পাক তিনি বান্দা-বান্দীকে পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পালন করতে বলেছেন সেহেতু পালন করা বান্দা-বান্দীর জন্য ফরয ওয়াজিব হয়ে গিয়েছে। আর উহা পালন করা ও অশেষ নিয়ামতের কারণ এবং বান্দাবান্দির জন্য সমস্ত আমলের চেয়ে সর্বশ্রেষ্ঠ আমল। সুবহানাল্লাহ!

এখন কথা হলো ৯৮ ভাগ মুসলমানদের এ দেশে পবিত্র সাইয়্যিদুল আইয়াদ শরীফ তথা পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পালনে কোনো গুরুত্ব নেই, বরং তা নিয়ে এলোমেলো কথা-বার্তা বলে থাকে। নাউযুবিল্লাহ!

মূলতঃ মানুষ যা কিছুই শিখে না কেন প্রত্যেকটি জানার পিছনে উৎস হলো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও পুস্তকাদি। কিন্তু এই দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ও পুস্তাকাদির মধ্যে এসব বিষয়ে কোনো নছীহত বা বিশেষ কোন পাঠ উল্লেখ নেই। যার কারণে ইচ্ছায় অনিচ্ছায় মুসলমান সন্তান-সন্ততিরা সেই রহমত-বরকত নিয়ামত ও সাকীনা হতে বঞ্চিত হয়ে যাচ্ছে। নাউবিল্লাহ!

প্রকৃতপক্ষে, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র বিলাদত শরীফ তথা দুনিয়ার বুকে তাশরীফ মুবারক গ্রহণ করার কারণে মহান আল্লাহ পাক তিনি ও হযরত ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনারাসহ আসমান, যমীন, পশু-পাখি, কীট-পতঙ্গ গাছপালা ইত্যাদি সকলেই খুশি মুবারক প্রকাশ করেছেন। তাহলে আমরা যারা উম্মত রয়েছি আমাদের কতটুকু খুশি প্রকাশ করার দরকার, খুশি প্রকাশ করাটা ফরয তা একটু বোধগম্যে আনলে তা অনায়াসে বুঝা যায়।

কাজেই আমরা ৯৮ ভাগ মুসলমান ধর্মপ্রাণ ভাই-বোনেরা সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলছি- সাইয়্যিদে ঈদে আ’যম, সাইয়্যিদে ঈদে আকবার, পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার গুরুত্ব, সম্মান মর্যাদা-মর্তবা উনার বিষয়টি প্রত্যেক শিক্ষাবোর্ডের বই-পুস্তকে সিলেবাসে অন্তর্ভুক্ত করা হোক।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে