সাইয়্যিদুল আম্বিয়া ওয়াল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রিয়-পছন্দনীয় কতিপয় খাবার এবং তার গুণাগুণ (৩)


আজওয়া খেজুর সবচেয়ে
প্রিয়-পছন্দনীয়
রঈসুল মুফাসসিরীন, হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বর্ণনা করেন-
كان احب التمر الى رسول ا لله صلى الله عليه وسلم العجوة
অর্থ: “নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সর্বাধিক প্রিয় ও পছন্দনীয় খেজুর ছিল আজওয়া।” (আখলাক্বুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম- ২৮৫)
নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন-
والعجوة من الجنة وهى شفاء من السم
অর্থ: “আজওয়া খেজুর জান্নাতের একটি বিশেষ ফল। তারমধ্যে বিশেষ শিফা বা রোগমুক্তি রয়েছে বিষ থেকে।” (তিরমিযী শরীফ, মিশকাত শরীফ)
তিনি আরো ইরশাদ মুবারক করেন-
من تصبح كل يوم بسبع تمرات عجوة لم يضره فى ذلك اليوم سم ولا سحر
অর্থ: “যে ব্যক্তি প্রতিদিন সকালে সাতটি আজওয়া খেজুর খাবে, সেদিন বিষ ও যাদু তার কোনো ক্ষতি করতে পারবে না।” সুবহানাল্লাহ! (বুখারী শরীফ, মুসলিম শরীফ)
উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম তিনি বর্ণনা করেন-
ان رسول الله صلى الله عليه وسلم قال ان فى عجوة العالية شفاء وانها ترياق اول البكرة.
অর্থ: “নিশ্চয়ই নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, পবিত্র মদীনা শরীফের উন্নত মানের খেজুর আজওয়ার মধ্যে শিফা বা রোগমুক্তি রয়েছে। আর সকালে (খালী পেটে) খাওয়ার মধ্যে বিশেষ প্রতিষেধক রয়েছে।” (মুসলিম শরীফ, মিশকাত শরীফ)
বিশিষ্ট ছাহাবী হযরত সা’দ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বর্ণনা করেন, এক সময় আমি মারাত্মকভাবে অসুস্থ হলাম। নূরে মুজাস্সাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি আমাকে দেখার জন্য তাশরীফ মুবারক নিলেন। তিনি উনার হাত মুবারক আমার বুকের উপর রাখলেন। উনার হাত মুবারকের শীতলতা আমার অন্তর পর্যন্ত পৌঁছে গিয়েছিলো। তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, আপনি একজন হৃদ বেদনার রোগী তথা হার্টের রোগী। আপনি হারিছ ইবনে কালদাহ সাকিফীর নিকট যান। সে একজন অভিক্ষ চিকিৎসক। সে যেনো পবিত্র মদীনা শরীফ উনার সাতটি আজওয়া খেজুর নিয়ে বীজসহ পিশে আপনার মুখে ঢেলে দেয়।” (আবু দাঊ শরীফ, মিশকাত শরীফ)
নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি খেজুরের রস পান করেছেন
পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত রয়েছে-
عن حضرت ابن عمر رضى الله تعالى عنه ان النبى صلى الله عليه وسلم اكل جمار النخل
অর্থ: হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে উমর রদ্বিয়াল্লাহু তায়লা আনহু তিনি বর্ণনা করেন, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি খেজুর গাছের রস খেয়েছেন। (আখলাক্বুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ২৮৬)

Views All Time
2
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে