সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, নুরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র জীবনী মুবারক-ধারাবাহিক।


সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, নুরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র জীবনী মুবারক-ধারাবাহিক।
**************************************************************************
পূর্ব প্রকাশিতের পর —
***********************
সম্মানিত হাদীছ শরীফ-উনার মধ্যে বর্ণিত রয়েছে, “খালিক্ব, মালিক, রব মহান আল্লাহ পাক উনার রসূল সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি বলেন,
لى مع الله وقت لايسعن فيه ملك مقرب و لانبى مرسل
“খালিক্ব, মালিক, রব মহান আল্লাহ পাক উনার সাথে আমার প্রতিটি মুহূর্ত বা সময় এমনভাবে অতিবাহিত হয়, যেখানে কোনো হযরত নবী-রসূল আলাইহিমুস সালাম ও কোনো নৈকট্যশীল হযরত ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনাদেরও স্থান নেই।” সুবহানাল্লাহ!
 
আখিরী রসূল, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার আনুষ্ঠানিকভাবে নুবুওওয়াত প্রকাশ ও এতদসম্পর্কিত মু’জিযা শরীফ:
 
ورأيت رهطا من قريش قد تعلقوا بأغصانها، ورأيت قوما من قريش يريدون قطعها. فاذا دنوا منها أخرهم شاب لمأر قط أحسن منه وجها ولا أطيب منه ريحا فيكسر أظهرهم ويقلع أعينهم. فرفعت يدى لأتناول منها نصيبا، فمنعنى الشاب فقلت لمن النصيب؟ فقال النصيب لهؤلاء الذين تعلقوا بها وسبقوك اليها. فانتبهت مذعورا فزعا فرأيت وجه الكاهنة قد تغير، ثم قالت لئن صدقت رؤياك ليخرجن من صلبك رجل يملك المشرق والمغرب ويدين له الناس. ثم قال- يعنى حضرت عبد المطلب عليه السلام- لأبى طالب، لعلك تكون هذا المولود قال فكان أبو طالب يحدث بهذا الحديث بعد ما ولد رسول الله صلى الله عليه وسلم وبعد ما بث. ثم قال كانت الشجرة والله أعلم أبا القاسم الأمين، فيقال لأبى طالب ألا تؤمن؟ فيقول السبة والعار.
 
আমি আরো দেখলাম কুরাইশ গোত্রের একদল লোক গাছটির ডাল ধরে ঝুলে আছে। অপর একটি কুরাইশ দল গাছটি কেটে ফেলার চেষ্টা করছে। কেটে ফেলার উদ্দেশ্যে তারা গাছের নিকটে গেলে এক সুমহান যুবক তাদেরকে হটিয়ে দেন। সেই সুমহান যুবকের মতো এতো সুন্দর সুশ্রী আর সৌরভময় সুমহান যুবক আমি আর কখনো দেখিনি। ওই সুমহান যুবক পিটিয়ে তাদের হাড়-গোড় ভেঙে দিচ্ছিলেন এবং চোখগুলো উপড়ে ফেলছিলেন। আমি আমার দু’হাত বাড়িয়ে গাছ থেকে কিছু নিতে চাইলাম। কিন্তু সেই সুমহান যুবক তিনি আমাকে বারণ করলেন, আমি বললাম হে যুবক! তাহলে এ গাছ কাদের জন্য? তিনি বললেন, যারা গাছ ধরে ঝুলে আছেন এবং যারা আপনার আগে এসেছেন এ গাছ তাদের জন্য। এতোটুকু দেখার পর আমি ভীত-সন্ত্রস্ত অবস্থায় ঘুম থেকে উঠলাম।
আমি দেখতে পেলাম আমার নিকট থেকে স্বপ্নের বিবরণ শুনে পাদরীর চেহারার রং পাল্টিয়ে গেছে। পাদরী বললেন, আপনার স্বপ্ন যদি সত্য হয়ে থাকে তাহলে আপনার বংশে এমন একজন সুমহান ব্যক্তি আগমন করবেন যিনি মাশরিক (পূর্ব) থেকে মাগরিব (পশ্চিম) পর্যন্ত গোটা পৃথিবীর তথা সারা আলমের নবী-রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হবেন। (জিন) ইনসান উনার ধর্ম গ্রহণ করবেন।
এই ঘটনার বিবরণ দেয়ার পর সাইয়্যিদুনা হযরত আব্দুল মুত্তাবিল আলাইহিস সালাম তিনি আবূ ত্বালিব উনাকে বললেন, সম্ভবত ওই সন্তানটি আপনিই হবেন।
সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিলাদত শরীফ এবং উনার আনুষ্ঠানিক নবুুওওয়াত শরীফ প্রকাশের পর আবূ ত্বালিব তিনি প্রায়শই এই ঘটনাটি বলতেন। তারপর তিনি বলেন, মহান আল্লাহ পাক উনার কসম! সাইয়্যিদুনা হযরত আবুল কাসিম, আল আমীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনিই ছিলেন সেই গাছ মুবারক। সুবহানাল্লাহ! মানুষ আবূ ত্বালিব উনাকে জিজ্ঞাসা করতো, আপনি কী উনার উপর ঈমান আনবেন না? জবাবে তিনি বলতেন, গালমন্দ আর নিন্দার কারণেই তো তা পারছি না। (আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া ২য় জিলদ ৩১৭ ও ৩১৮)
উল্লেখ্য যে, চীশতিয়া খান্দানের বুযুর্গানে দ্বীন রহমতুল্লাহি আলাইহিম উনারা হাদীছ শরীফ-এর উদ্ধৃতি দিয়ে বর্ণনা করেন, হযরত ঈসা রূহুল্লাহ আলাইহিস সালাম তিনি যখন কিয়ামত সংঘটিত হওয়ার পূর্বে হযরত ইমাম মাহদী আলাইহিস সালাম উনাকে সহযোগিতা করার লক্ষ্যে উম্মতে হাবীবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হিসেবে যমীনে আগমন করবেন তখন হযরত ঈসা রূহুল্লাহ আলাইহিস সালাম তিনি যে হযরত ঈসা রূহুল্লাহ আলাইহিস সালাম তিনি সেটা প্রমাণ করার জন্য উনার সুমহান এক মু’জিযা শরীফ ‘মুর্দাকে জিন্দা করা’ সেটা প্রকাশের জন্য তিনি আবু ত্বালিব উনাকে উনার কবরে যেয়ে قم باذن الله বলে জিন্দা করবেন। অতঃপর আবু ত্বালিব তিনি ঈমান এনে মুসলমান হবেন এবং মুসলমান হিসেবে বিছাল শরীফ লাভ করবেন। সুবহানাল্লাহ!
 
(ইনশাআল্লাহ চলবে)
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে