সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন,নুরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র জীবনী মুবারক-ধারাবাহিক।


সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন,নুরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র জীবনী মুবারক-ধারাবাহিক।
**************************************************************************
পূর্ব প্রকাশিতের পর –
*********************
খলিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার সম্মানিত কিতাব কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন –
 
يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُواْ ادْخُلُواْ فِي السِّلْمِ كَآفَّةً وَلاَ تَتَّبِعُواْ خُطُوَاتِ الشَّيْطَانِ إِنَّهُ لَكُمْ عَدُوٌّ مُّبِينٌ
 
হে ঈমানদার গন! তোমরা পরিপূর্ণভাবে সম্মানিত ইসলাম উনার অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাও এবং শয়তানের পদাংক অনুসরণ কর না। নিশ্চিত রূপে সে তোমাদের প্রকাশ্য শত্রু। সম্মানিত সুরা বাক্বারা শরীফ উনার সম্মানিত আয়াত শরীফ ২০৮।
 
সর্বপ্রথম ঈমান আনয়নকারী হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম: সুবহানাল্লাহ।
 
আরো বর্ণিত রয়েছে-
قال حضرت ابن اسحاق رحمة الله عليه ثم إن حضرت على بن ابى طالب عليه السلام جاء بعد ذلك بيوم وهما يصليان. فقال حضرت على عليه السلام يا حضرت محمد صلى الله عليه وسلم ما هذا؟ قال دين الله الذى اصطفى لنفسه، وبعث به رسله، فادعوك إلى الله تعالى وحده لا شريك له، وإلى عبادته. وأن تكفر باللات والعزى. فقال حضرت على عليه السلام هذا أمر لم أسمع به قبل اليوم، فلست بقاض أمرا حتى أحدث به أبا طالب. فكره رسول الله صلى الله عليه وسلم أن يفشى عليه سره قبل ان يستعلن امره. فقال له يا حضرت على عليه السلام إذ لم تسلم. فاكتم. فمكث حضرت على رضى الله تعالى عنه تلك الليلة،
অর্থ: “হযরত ইবনে ইসহাক্ব রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি বলেন, ওই ঘটনার একদিন পর হযরত আলী ইবনে আবূ ত্বালিব আলাইহিস সালাম তিনি উনাদের নিকট আসেন। তখন নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ও উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত খাদীজাতুল কুবরা আলাইহাস সালাম উনারা নামায আদায় করছিলেন। হযরত আলী কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম তিনি বললেন, হে মহান আল্লাহ পাক উনার হাবীব হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনারা এসব কি করছেন? আখিরী রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি বললেন, এটি মহান আল্লাহ পাক উনার দ্বীন ইসলাম, যাতে তিনি উনার সন্তুষ্টি দিয়ে মনোনীত করেছেন। এবং এ দ্বীন ইসলাম দিয়ে তিনি সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে প্রেরণ করেছেন। আমি আপনাকে এক আল্লাহ পাক ও লা-শরীক তায়ালা উনার দিকে এবং ইবাদত-বন্দেগীর দিকে আহ্বান করছি। আমি আপনাকে আহ্বান জানাচ্ছি লাত ও উযযা প্রতিমা পরিত্যাগ করতে। হযরত আলী কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম তিনি বললেন, এটিতো এমন একটি বিষয়, যা ইতঃপূর্বে কখনো শুনিনি।
আমার পিতা আবূ ত্বালিব উনার সঙ্গে আলোচনা না করে আমি কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারছি না। পুরো বিষয়টা প্রকাশ্যে ঘোষিত হওয়ার পূর্বে আবূ ত্বালিব উনার নিকট এ গোপনীয় বিষয়টি প্রকাশিত হোক নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি তা সমীচীন মনে করলেন না। তাই নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি হযরত আলী কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম উনাকে বললেন, হে আলী আলাইহিস সালাম! আপনি যদি এখনই ইসলাম গ্রহণ না করেন তবে আপাততঃ বিষয়টি গোপন রাখুন, অন্য কাউকে বলবেন না। হযরত আলী কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম তিনি ওই রাত্রি অপেক্ষা করলেন। অতঃপর মহান আল্লাহ পাক তিনি হযরত আলী কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম উনার অন্তরে ইসলাম গ্রহণের আগ্রহ সৃষ্টি করে দিলেন।সুবহানাল্লাহ।
(ইনশাআল্লাহ চলবে)
Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে