সামান্য ব্যবধানে সন্ত্রাসী হিন্দুদের সন্ত্রাসীপনার কয়েকটি ঘটনা আমরা কি বাংলাদেশে আছি না ভারতে? (পর্ব-১)


ঘটনা:১
রাজধানীর উত্তরখান থানার মৈনারটেক বায়তুস সাফী মসজিদ-এর ইমাম ছিলেন মুহম্মদ আখের (৩৮)। মসজিদের মাইকে পবিত্র আযান এবং ভোরে পবিত্র কুরআন শরীফ তিলাওয়াত উনার কারণে পার্শ্ববর্তী হিন্দুদের গা-জ্বালা ধরে যায়। যার কারণে স্থানীয় হিন্দু সন্ত্রাসী নিখিল চন্দ্র সরকার ইমাম সাহেবকে বেশ কয়েকবার প্রাণনরাশের হুমকিও দেয়। গত ২০ জুলাই স্থানীয় হিন্দু সন্ত্রাসী নিখিল, শেমল চন্দ্র সরকার, কার্তিক, অনিল চন্দ্র সরকার, জয় ও তার সহযোগী সন্ত্রাসীরা মিলে ইমাম মুহম্মদ আখেরকে প্রচন্ড মারধর করে। এতে গুরুতর আহত হন ইমাম সাহেব। এ সময় এলাকার লোকজন মাওলানা মুহম্মদ আখেরকে উদ্ধার করে মসজিদে নিয়ে যান। মসজিদে আনার সাথে সাথে মোতাওয়াল্লি হাজী গিয়াস উদ্দিন সরকার গুরুতর আহত ইমাম সাহেবকে গ্রামের বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। এর ১১ দিন পর ইন্তেকাল করেন ইমাম সাহেব। এই ঘটনায় স্থানীয় প্রভাবশালীদের চাপে এখনো কোনো মামলা হয়নি। (সূত্র: দৈনিক জনতা: ৫ আগস্ট)
বলাবাহুল্য, ভারতে গরু জবাই নিষিদ্ধ হলেও মুসলমান হত্যা সিদ্ধ। এখন দেখা যাচ্ছে, বাংলাদেশেও সেই আইন জারি করতে চাচ্ছে হিন্দুরা। আর এই হিন্দু সন্ত্রাসীদের পুরোদ্যমে সাপোর্ট দিয়ে যাচ্ছে প্রশাসন ও হিন্দুত্ববাদী মিডিয়াগুলো।
তাই এখনও যদি মুসলমানরা এর বিরুদ্ধে জোর প্রতিবাদ গড়ে না তোলে তাহলে কিছুদিনের মধ্যেই হয়ত দেখা যাবে, ভারতের মত বাংলাদেশেও রামরাজত্ব কায়েম করেছে হিন্দুরা, যেখানে যত্র-তত্র জবাই করা হবে মুসলমানদের। নাঊযুবিল্লাহ! (চলবে)

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে