সার্জেন্ট নাইদা হোসান


 

ভারতীয় বংশোদ্ভূত এক মার্কিন নারীসেনা তাঁর নামের জন্য হয়রানির শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন।
আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা এপির প্রতিবেদনে বলা হয়, মার্কিন সেনাবাহিনীর প্রথম শ্রেণীর সার্জেন্ট নাইদা হোসান (৪১) মুসলমান নন। তিনি ক্যাথলিক খ্রিষ্টান। কিন্তু সহকর্মীদের কাছে তাঁর নামটি মুসলমানদের মতো মনে হওয়ায় হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে তাঁকে। এমনকি সহকর্মীরা তাঁকে ‘সার্জেন্ট হুসেন’ বলে ডেকে বিদ্রূপ করেন। নাইদা কোন স্রষ্টার উদ্দেশে প্রার্থনা করেন, তা নিয়েও উপহাস করেন তাঁর সহকর্মীরা।
হয়রানি থেকে রেহাই পেতে গত বছর আফগানিস্তানে মোতায়েনের আগে নাইদা আইনগতভাবে তাঁর নাম পরিবর্তন করেন। নতুন নাম রাখেন—নাইদা ক্রিস্টিয়ান নোভা। কিন্তু নাম পরিবর্তনেও সমস্যার সমাধান হয়নি; বরং আরও বেড়েছে।
এরপর সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে এ বিষয়ে অভিযোগ করেছেন নাইদা। কিন্তু কোনো প্রতিকার পাননি। হতাশ হয়ে এখন আত্মহত্যার কথা ভাবছেন।
আর যাতে কেউ এ ধরনের তিক্ত অভিজ্ঞতার মুখোমুখি না হন, সে কারণে বার্তা সংস্থা এপির কাছে হয়রানির বিষয়টি প্রকাশ করেছেন বলে দাবি করেন নাইদা।
সবচেয়ে আশ্চর্যের বিষয়, নাইদার অভিযোগ সম্পর্কে এপির পক্ষ থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিভাগের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। কিন্তু মার্কিন সেনাবাহিনীর, আইন মন্ত্রণালয় বা অ্যাটর্নি অফিস কেউই মুখ খুলতে রাজি হয়নি।

Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

  1. এবার বুঝুন আমেরিকা মুসলমান উনাদের প্রতি কতটুকু বিদ্বেষ পোষন করে থাকে । অথচ অথর্ব মুসলমান না বুঝে তাদের -ই তাবেদারি করে। নাউযুবিল্লাহ

  2. সাম্প্রদায়ীক মনভাব প্রকাশ করলে ও তারা সুশীল! মনবতা দরদী কুত্তার খাবার নিয়া পারা পারি কিন্তু মানুষের খবর নাই!

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে