;সিগারেট


দামী গাড়ি থেকে সিগারেট ফুঁকতে
ফুঁকতে
এক ভদ্রলোক নামলেন। সাথে ওনার
মেয়ে, আর মেয়ের কোলে একটা
বিদেশী
কুকুর।
ভদ্রলোক রাস্তার পাশে সবজিওয়ালা
এক বৃদ্ধের সাথে শাকের দামা দামি
করছেন,
“ওই শাকের দাম কত?”
–বাবা এক আটি পাঁচ টাকা।
–পাঁচ টাকা! এতো দাম! না না হবে
না,
চার টাকা দিলে দাও, না হলে
গেলাম।
–বাবা,আপনারা বড়লোক মানুষ
আমারে এক টাকা কম দিয়া আপনার কি
লাভ হইবো?
পাঁচটা টাকাই দেন বাবা!
লোকটি ধমক দিয়ে বললো,
-এতো কথা বলো কেন? বলছি না দিলে
দাও, না হলে গেলাম। বৃদ্ধ লোকটি নরম
স্বরে বললো,
–আচ্ছা, আপনি যদি এক টাকা কম
দিয়ে খুশী হন তাহলে আমিও খুশী
বাবা!
হতদরিদ্র বৃদ্ধ মানুষ এক টাকা কম
নিয়ে একজন কোটিপতিকে খুশী করতে
পারলো, কিন্তুু একজন কোটিপতি এক
টাকা বেশী দিয়ে একজন গরীব বৃদ্ধকে
খুশী করতে পারলো
না…!
আসলে সবাই এমনই !
২টাকার সিগারেট ২০টাকায় কিনতে
একটুও কষ্ট লাগে না। অথচ শরীরের
রক্ত পানি করে ফসল ফলায় যে কৃষক
তাঁকে একটা টাকা বেশি দিতে
কার্পন্য
করে। আর তাই নিজের দেশের কৃষকের
ভাগ্যের পরিবর্তন হোক আর নাই
হোক, টাকার পাহাড় কিন্তু ঠিকই গড়ছে
বহুজাতীক সিগারেট কম্পানীগুলো ।মানুষ এমনই….

বিদেশী কুত্তার পিছনে লাখ লাখ
টাকা
খরচ করে। সেটার জন্য বিদেশী খাবার,
বিদেশী বিছানার ব্যবস্থা করে। অথচ
তাদের সামনেই যখন শীতের রাতে
একটা ব্যানার কিংবা একটা চট
পেচিয়ে
অনাহারে অর্ধাহারে রাত কাটায়
অসংখ্য
পথ শিশু তখন তা চোখেই দেখেনা।

মানবতা আর কতকাল এমন
থাকবো….???
কার্টেসী বুশরা

Views All Time
2
Views Today
3
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে